মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২৪
Homeসারাবাংলাবিড়ি শিল্পে শুল্ক কমানোর দাবিতে রংপুরে শ্রমিকদের মানববন্ধন

বিড়ি শিল্পে শুল্ক কমানোর দাবিতে রংপুরে শ্রমিকদের মানববন্ধন

জয়নাল আাবেদীন: রংপুর চেম্বর অব কমার্স আয়োজনে প্রাক-বাজেট আলোচনায় বিড়ি শিল্পে শুল্ক বৃদ্ধি প্রস্তাবের প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে বৃহত্তর রংপুর অঞ্চলের বিড়ি শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ। বুধবার দুপুরে রংপুর চেম্বারের সামনে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন তারা।

মানববন্ধন শেষে রংপুর চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মোস্তফা সোহরাব চৌধুরী টিটু বরাবর পাঁচ দফা দাবি সম্বলিত স্মারকলিপি প্রদান করেন শ্রমিকরা। তাদের দাবি গুলোর মধ্যে রয়েছে, আসন্ন অর্থবছরের বাজেটে বিড়ির শুল্ক ১৮ টাকা থেকে নূন্যতম ২ টাকা কমিয়ে ১৬ টাকা করা, যাচাই-বাছাই ব্যতিরেকে লাইসেন্সসহ রাজস্ব ফাঁকি দেওয়া সকল বিড়ি বন্ধ করা, বিড়ি ও সিগারেটের অগ্রিম আয়করের বৈষম্য দূর করা, নি¤œস্তরের সিগারেটের মূল্য ৪০ টাকা থেকে ৫০ টাকা বৃদ্ধি করা এবং ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকোর আগ্রাসন বন্ধ করা।

বৃহত্তর রংপুর অঞ্চল বিড়ি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আমিন উদ্দিন (বিএসসি) সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ বিড়ি শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল গফুর, প্রচার সম্পাদক শামীম ইসলাম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল হাসনাত লাভলু, কার্যকরী সদস্য আনোয়ার হোসেন । বক্তারা বলেন, ‘বিড়ি এ দেশের প্রাচীন শ্রমঘন শিল্প। এ শিল্পে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর অসহায়, বিধবা, স্বামী পরিত্যক্তা, শারীরিক বিকলঙ্গতা, নদীভাঙন ও চর এলাকার মানুষ কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে। স্বাধীনতার পর এ অসহায় শ্রমিকদের কথা বিবেচনা করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিড়িশিল্পকে শুল্কমুক্ত ঘোষণা করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংসদে বাজেট বক্তৃতায় বিড়িতে শুল্ক কমিয়ে সিগারেটে শুল্ক বৃদ্ধির নির্দেশনা দেন। কিন্তু ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো এ দেশের কিছু দুর্নীতিগ্রস্ত আমলাকে ব্যবহার করে বিড়ির ওপর মাত্রাতিরিক্ত করের বোঝা চাপিয়ে দেয়। ফলে করের বোঝা সহ্য করতে না পেরে বিড়ি মালিকরা কারখানা বন্ধ করতে বাধ্য হচ্ছেন।

বক্তরা বলেন, বাজেটের সময় বিড়িতে মাত্রাতিরিক্ত শুল্কারোপের জন্য জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে বিভিন্ন প্রস্তাব দিয়ে থাকেন বিদেশি সিগারেট কোম্পানি ও দেশীয় কিছু এনজিও। তারা দেশীয় বিড়ি শিল্প ধ্বংসের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। দেশীয় শিল্প ও শ্রমিক বিরোধী তাদের সকল ষড়যন্ত্র বন্ধ করতে হবে। বিড়ি শিল্প ও শ্রমিকদের টিকিয়ে রাখার স্বার্থে নি¤œস্তরের সিগারেটের মূল্য ৪০ টাকা থেকে ৫০ টাকা বৃদ্ধি করতে হবে। একইসাথে বিড়ি ও সিগারেটের অগ্রিম আয়করের বৈষম্য দূর করতে হবে। এছাড়া বিট্রিশ আমেরিকান টোব্যাকোর শুল্ক ফাঁকিসহ তাদের সকল প্রকার আগ্রাসন বন্ধ করে প্রাচীন এই কুঠির শিল্পকে টিকিয়ে রাখতে হবে।

আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerbangladesh.com.bd/
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments