বুধবার, এপ্রিল ১৭, ২০২৪
Homeসারাবাংলালিপনকে একেবারে সরিয়ে দেওয়ার উদ্দেশ্যেই গুলিবর্ষণ করেছিলো: ডিসি ক্রাইম

লিপনকে একেবারে সরিয়ে দেওয়ার উদ্দেশ্যেই গুলিবর্ষণ করেছিলো: ডিসি ক্রাইম

জয়নাল আবেদীন: রংপুর নগরীর ধাপ এলাকায় একটি শপিংমলের সামনে মাইক্রোবাস স্ট্যান্ডে মোটর মালিক সমিতির নামে চাঁদা আদায়ের অভিযোগে মটর মালিক সমিতির নিয়োগকৃত কাওছার আলীকে বাস টার্মিনাল থেকে মেডিকেল মোড় এলাকায় বদলি এবং আসাদুল ইসলাম সুমন ও আহসান হাবীব মিলনকে বরখাস্ত করা হয়। এই বদলি ও বরখাস্তে রংপুর জেলা মটর মালিক সমিতির যুগ্ন সম্পাদক সৈয়দ আফতাবুজ্জামান লিপনের হস্তক্ষেপ আছে বলে সন্দেহ করে গুলিবর্ষণ করা হয় । এই কথা সংবাদ সম্মেলন করে জানালেন রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ—পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম) আবু মারুফ হোসেন ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রংপুর নগরীর সেন্ট্রাল রোডস্থ ডিবি কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ—পুলিশ কমিশনার বলেন গত ১৮ ফেব্রুয়ারি রাতে আসাদুল ইসলাম সুমনের দেওয়া তথ্যে নগরীর কামারপাড়া ঢাকা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় সৈয়দ আফতাবুজ্জামান লিপনকে লক্ষ্য করে প্রাইভেট কারে গুলিবর্ষণ করে কাওছার আলী। গুলিবর্ষণ শেষে হান্নান বিন বাবুর মোটরসাইকেলে করে তাৎক্ষণিকভাবে তারা পালিয়ে যায়। উক্ত গুলিবর্ষণের ঘটনায় ইতোমধ্যে ৪ জনকে গ্রেফতার করে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, গুলিতে প্রাইভেট কারের ক্ষতি হলেও অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পায় লিপন। পরে ১৯ ফেব্রুয়ারি রংপুর মেট্রোপলিটন কোতয়ালী থানায় একটি মামলা দায়ের করে সৈয়দ আফতাবুজ্জামান লিপন। মামলা দায়েরের পর রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ তথ্য প্রযুক্তি এবং বিভিন্ন দিক থেকে বিশ্লেষণ করে অভিযান পরিচালনা করে ৪ জনকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতার ৪ জনের মধ্যে ৩ জন এই ঘটনার সাথে সরাসরি জড়িত।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন সাতগাড়া মিস্ত্রিপাড়ার আক্তার হোসেনের ছেলে কাওছার আলী ধাপ চেকপোষ্ট হাজী কলনীর সোলাইমান আলীর ছেলে আসাদুল ইসলাম সুমন ধাপ শ্যামলী লেনের তৈয়বুর রহমানের ছেলে আহসান হাবীব মিলন এবং ধাপ শিমুলবাগ এলাকার ফজলুল হকের ছেলে হান্নান মিয়া বাবু। সম্মেলনে আরো জানান গ্রেফতার ব্যক্তিদের রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তারা জানায় বদলি জনিত ক্ষোভ ও ভাগবাটোয়ারার আধিপত্য বিস্তারের জন্য ‘একেবারে সরিয়ে দেওয়ার উদ্দেশ্যেই গুলিবর্ষণ চালানো হয়েছিলো। এখনও গুলিবর্ষণের রিভলবারটি (অস্ত্র) উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। অস্ত্র উদ্ধারে তাদের পুনরায় রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদে করা হবে। এ সময় রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ—পুলিশ কমিশনার অপরাধ উৎপল রায়, রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী পুলিশ কমিশনার আরিফুজ্জামানসহ অন্যান্য পুলিশ কর্মকর্তা ছাড়াও ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerbangladesh.com.bd/
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments