বাংলাদেশ প্রতিবেদক: কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে মামুন শেখ নামে এক ট্রাক ড্রাইভারের থেকে ছিনতাইয়ের অভিযোগ উঠেছে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর বিরুদ্ধে। অভিযুক্তরা হলেন আইন বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের রেজওয়ান সিদ্দিকী কাব্য ও বায়োমেডিকেল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের আল আমিন হোসেন। তারা উভয়েই শাখা ছাত্রলীগ নেতা শাহজালাল সোহাগের কর্মী। সোমবার রাত ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

অভিযোগ অভিযুক্তরা ড্রাইভার ও তার সহকারীকে মারধর করে ১০ হাজার টাকা দাবি করেন। এসময় তারা টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে ট্রাকে থাকা চালকের মানিব্যাগে থাকা ৫ হাজার টাকা ও ট্রাকের চাবি ছিনতাই করেন। এছাড়াও ট্রাকে থাকা তেল ছিনতাই করার চেষ্টা করলে কয়েকজন লোক জড়ো হলে তাল সেখান থেকে চলে যান। এসময় অভিযুক্তরা নেশাগ্রস্ত অবস্থায় ছিলেন। এছাড়াও তাদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মাদক সেবনের অভিযোগ রয়েছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন।

ট্রাক চালক ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মামুন শেখ (ট্রাক চালক) তেলের কন্টেইনার নিয়ে জয়পুরহাট থেকে খুলনায় যাওয়ার পথে ট্রাক পাংচার হয়। ফলে গাড়ি সারাতে চালক ইবির প্রধান ফটকের সামনে গাড়ি দাঁড় করান। এসময় কাব্য ও আল-আমিন বাইকে করে ক্যাম্পাস প্রবেশ পথে গাড়ি দাঁড় করানোয় চালকের সাথে বাকবিতণ্ডায় জড়ান। এক পর্যায়ে তাদের থেকে ১০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন ও গাঁজা আছে কিনা জানতে চান। এসময় ভুক্তভোগীরা টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে চালক ও তার সহকারীকে মারধর করে মানিব্যাগ থেকে পাঁচ হাজার টাকা ও চাবি ছিনতাই করে নিয়ে যান।

পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা আব্দুস সালাম সেলিম ঘটনাস্থলে আসলেও প্রক্টরিয়ার বডির কেউ আসেনি। এরপর রাত সাড়ে ১২টার দিকে ভুক্তভোগী চালক ইবি থানায় গেলে এসআই সাইফুল ঘটনাস্থলে আসেন।
এ বিষয়ে তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া আমরা হল থেকে কাউকে আটক করতে পারি না।

চালক মামুন শেখ বলেন, এতো বড় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পড়ে যদি ছাত্ররা ছিনতাই করে তাহলে শিক্ষিত আর অশিক্ষিতদের মধ্যে পার্থক্য থাকলো কই। টাকা নেয়ার পরে আমি শুধু বলেছিলাম গাড়ির চাবিটা ম্যানেজ করে দিতে কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সেটাও করে দেয়নি। পরে বিকল্প পদ্ধতিতে গাড়ি স্টার্ট করে চলে এসেছি। আজকে (মঙ্গলবার) গিয়ে থানায় মামলা করবো।

অভিযুক্ত রেজওয়ান সিদ্দিকী কাব্য বলেন, গাঁজার থেকে বড় বড় জিনিসের বয়স পার করে আসছি, গাঁজা আমার কাছে কোন ফ্যাক্ট না। আর আমি ওদের কাছে গাঁজা চাইব ক্যান ওরা কি গাঁজার ডিলার নাকি? টাকা থাকলে ক্যাম্পাসেই গাঁজার থেকে বড় বড় জিনিস পাওয়া যায়। আর আমি মাসে ৩০ হাজার টাকা খরচ করি, আমি ওদের কাছে টাকা নিব ক্যান?

অভিযুক্ত আল আমিন বলেন, আমি ঐদিকে খাবার নিতে গেছিলাম পরে সেখানে কাব্য ভাইয়ের সাথে দেখা হয়েছিল। আমি এ ঘটনার সাথে জড়িত নই।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ঘটনাটি বিশ্ববিদ্যালয় সীমানার বাইরে ও গভীর রাতে হওয়ায় প্রক্টরিয়াল বডির কেউ যায়নি, অনেকে হয়তো ঘুমিয়ে গেছিলো। আমাদের সিকিউরিটি অফিসার সেখানে ছিলেন। আমি ওসির সাথে কথা বলেছি, ভুক্তভোগী থানায় অভিযোগ করলে তারা আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিবেন। আর অভিযুক্তরা দোষী হলে আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ নেবো।

Previous articleনোয়াখালীতে কিশোরীকে অপহরণের পর ধর্ষণ, থানায় মামলা
Next articleসুবর্ণচরে ওমান প্রবাসীকে কুপিয়ে হত্যা, প্রধান আসামি গ্রেফতার
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।