বাংলাদেশ ডেস্ক: একই পরিবারের বাবা-মা এবং ছেলের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের জোকার মণ্ডলপাড়ায় বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সকালে ওই পরিবারের ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

কলকাতা পুলিশ সূত্রে আনন্দবাজার জানায়, বছর পঞ্চাশের চন্দ্রব্রত মণ্ডল পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার গ্রুপ ডি কর্মী। স্ত্রী মায়ারানি মণ্ডল গৃহবধূ (৪৫) এবং ছেলে সুপ্রিয় মণ্ডল ইঞ্জিনিয়ার (২৮)। ভারতের অন্য রাজ্যে কাজ করতেন। সম্প্রতি তিনি কাজ ছেড়ে কলকাতায় চলে আসেন। ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার হলেও মৃত্যুর কারণ এখনও স্পষ্ট নয়। ঘটনার তদন্তে নেমেছে কলকাতার ঠাকুরপুকুর থানা।

প্রতিবেশীরা জানালেন, ওই পরিবারের সঙ্গে সবারই সুসম্পর্ক ছিল। বিধানসভায় কাজ করতেন চন্দ্রব্রত। ছেলে ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করে ভিন্ন রাজ্যে কাজে গিয়েছিলেন। কিন্তু বাবা চাইতেন, ছেলে যেন কলকাতায় ফিরে আসেন। বাবার কথামতো তিনি এ রাজ্যে ফিরেও আসেন। কিন্তু তেমন কিছু করতেন না। পাখির শখ ছিল সুপ্রিয়র। কিছু দিন আগে পাখিগুলি পাড়ায় অন্যদের দিয়েও দেন তিনি। প্রশ্ন উঠছে, তা হলে কি পরিকল্পনা করেই ওই পরিবার আত্মহত্যা করেছে?

এদিকে পুলিশ সূত্রে আনন্দবাজার জানায়, বুধবার সকালে পরিবারের কারও সাড়াশব্দ পাওয়া যায়নি। বেলা হলেও ঘর থেকে কাউকে বেরতে না দেখে সন্দেহ হয় প্রতিবেশীদের। তারাই ঠাকুরপুকুর থানায় খবর দেন। পুলিশ এসে ছাদের পাশের একটি ঘর থেকে তাদের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে। বাবা-মা সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলছিলেন বলে জানা যাচ্ছে। ছেলে ওই ঘরের একটি বিমের সঙ্গে ঝুলছিলেন। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। আত্মহত্যার ঘটনা, না কি এর নেপথ্যে অন্য কিছু রয়েছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।