বাংলাদেশ ডেস্ক: ভারতে দাপট দেখাচ্ছে করোনাভাইরাসের নতুন স্ট্রেন ওমিক্রন। ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সাম্প্রতিকতম পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৮ হাজার ৩০৬ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৮ হাজার ৮৩৪ জন। কমছে অ্যাকটিভ কেসও। এই মুহূর্তে তা এক লাখের নিচে, গত ৫৫২ দিনের মধ্যে যা সর্বনিম্ন।

ওমিক্রনের দাপট বাড়ায় ভারতে মহামারীর তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা করছে স্বাস্থ্যমহল। ইতোমধ্যে ২১ জনের শরীরে ওমিক্রন স্ট্রেন মিলেছে। দিল্লি, রাজস্থানেও ছড়াচ্ছে নতুন স্ট্রেনটি। তেলেঙ্গানায় ৪৩ জন কোভিড পজিটিভ হওয়ায় তাদের নমুনাও জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ের জন্য পাঠানো হয়েছে। ফলে এই সংখ্যাটা আরো বৃদ্ধির আশঙ্কা করা হচ্ছে। এই মুহূর্তে অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা ৯৮ হাজার ৪১৬।

এদিকে, ওমিক্রনের বাড়বাড়ন্তের মাঝেই সোমবার জরুরি বৈঠকে বসছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। বুস্টার ডোজের প্রয়োজনীয়তা এবং ১৮ বছরের কম বয়সীদের করোনা টিকা দেয়া নিয়ে আলোচনার সম্ভাবনা। আলোচনায় মন্ত্রিসভার সবুজ সংকেত মিললে জাইডাস-ক্যাডিলার ভ্যাকসিন জাইকোভ-ডি দিয়ে ছোটদের টিকাকরণ শুরু হতে পারে দ্রুতই।

বিদেশ থেকে বিমান আসা-যাওয়া এখনো বন্ধ হয়নি। তাই সংক্রমণ এড়াতে বিমানবন্দরেই যাত্রীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে। বিশেষত সংক্রমণের ঝুঁকি রয়েছে, এমন দেশ থেকে আসা যাত্রীদের কোয়ারেন্টাইন বাধ্যতামূলক। জোর দেওয়া হচ্ছে RT-PCR টেস্টে। এ নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডব্য বারবার পরিস্থিতি পর্যালোচনা করেছেন। সবমিলিয়ে, ওমিক্রনের দাপট সামলাতে অত্যন্ত তৎপর ভারত সরকার।

Previous articleবরগুনায় ‘নয়ন বন্ড’ শফিক রেজার গাঁজা সেবনের ভিডিও ভাইরাল
Next articleতথ্য প্রতিমন্ত্রীকে গ্রেফতারের দাবি রিজভীর
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।