বাংলাদেশ ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের পরামর্শমতো দেশের পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি ড. আরিফ আলভি। সবাইকে অবাক করে দিয়ে ইমরান খান আজ রোববার পার্লামেন্ট ভেঙে দেয়ার সুপারিশ করেন।

পাকিস্তানে আজ রোববার সকাল থেকেই একটির পর একটি নাটকীয় ঘটনা ঘটে যাচ্ছে। আজ ইমরান খানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব নিয়ে ভোটাভুটি হওয়ার কথা ছিল। ইমরান খান তার সমর্থকদের ইসলামাবাদে জমায়েত হতে বলেছিলেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাজধানীতে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছিল।

এদিকে আজ সকালে পার্লামেন্ট অধিবেশন শুরুর পরপরই ডেপুটি স্পিকার কাসিম সুরি অনাস্থা প্রস্তাবকে অসাংবিধানিক আখ্যায়িত করে তা বাতিল করে দেন।

এর পরপরই জাতির উদ্দেশে ভাষণে বলেন যে তিনি রাষ্ট্রপতিকে পার্লামেন্ট ভেঙে দেয়ার সুপারিশ করেছেন। এরপর রাষ্ট্রপতি ওই পরামর্শ মেনে পার্লামেন্ট ভেঙে দেন। এখন নতুন নির্বাচন হবে পাকিস্তানে।

পার্লামেন্ট ভেঙে দিতে রাষ্ট্রপতিকে পরামর্শ ইমরান খানের

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান পার্লামেন্ট ভেঙে দিতে রাষ্ট্রপতিকে পরামর্শ দিয়েছেন। রাষ্ট্রপতি আরিফ আলভি এর আলোকে পার্লামেন্ট ভেঙে দিলে দেশটিতে নতুন নির্বাচন হবে।

এর আগে জাতীয় পরিষদের ডেপুটি স্পিকার কাসিম সুরি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে আনা অনাস্থা প্রস্তাবকে অসাংবিধানিক হিসেবে আখ্যায়িত করেন।

ইমরান খান আজ রোববার জাতির উদ্দেশে দেয়া এক ভাষণে বলেন, অনাস্থা প্রস্তাব খারিজ করে দেয়ার জন্য জাতিকে অভিনন্দন জানান। তিনি বলেন, ডেপুটি স্পিকার বিদেশি ষড়যন্ত্রে সরকার পরিবর্তনের চেষ্টা বাতিল করে দিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী ইমরান বলেন, জাতির সামনে বিদ্রোহ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, “আমি বলতে চাই ‘ঘাবরানা নাহি হাই’ (ঘাবরাবেন না)। আল্লাহ পাকিস্তান পরিস্থিতি দেখছেন।”

তিনি বলেন, তিনি পার্লামেন্ট ভেঙে দিতে লিখিতভাবে রাষ্ট্রপতিকে পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি আরো বলেন, গণতন্ত্রীরা জনগণের কাছে যাবে এবং নির্বাচনের মাধ্যমেই নির্ধারিত হবে জনগণ কাকে ক্ষমতায় চায়।

প্রধানমন্ত্রী ইমরান বলেন, আইনপ্রণেতাদের ভোট ক্রয় করার জন্য বিলিয়ন বিলিয়ন রুপি ব্যয় করা হয়েছে। যারা টাকা নিয়েছে, তিনি তাদেরকে পরামর্শ দেন ওইসব টাকা এতিমদের মধ্যে বিলিয়ে দিতে।

তিনি বলেন, নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত হন। কোনো দুর্নীতিপরায়ণ শক্তি দেশের ভবিষ্যত নির্ধারণ করতে পারবে না। পার্লামেন্ট ভেঙে দেয়ার পর পরবর্তী নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু হবে, তত্ত্বাবধাক সরকার গঠনের প্রক্রিয়া হবে।

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ফারুখ হাবিব বলেন, ৯০ দিনের মধ্যে নতুন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

‘ইমরানের বিরুদ্ধে আনা অনাস্থা প্রস্তাব অসাংবিধানিক’

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে আনা অনাস্থা প্রস্তাবটিকে অসাংবিধানিক আখ্যা দিয়েছেন পার্লামেন্টের ডেপুটি স্পিকার কাসিম সুরি।

আজ বিরোধীদলগুলোর আনা অনাস্থা প্রস্তাবের ওপর ভোটাভুটি হওয়ার কথা। কিন্তু অধিবেশন শুরুর পরপরই ডেপুটি স্পিকার ঘোষণা করেন বিরোধী জোট যে অনাস্থা প্রস্তাবটি এনেছে তা সংবিধানের অনুচ্ছেদ ৫-এর লঙ্ঘন।

প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এখনো উপস্থিত হননি। স্পিকার কাসিম সুরিও অধিবেশনে যোগ দেননি। তবে তারা উপস্থিত হবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ইমরান খান আজ রোববার জাতির উদ্দেশে দেয়া এক ভাষণে বলেন, অনাস্থা প্রস্তাব খারিজ করে দেয়ার জন্য জাতিকে অভিনন্দন জানান। তিনি বলেন, ডেপুটি স্পিকার বিদেশি ষড়যন্ত্রে সরকার পরিবর্তনের চেষ্টা বাতিল করে দিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী ইমরান বলেন, জাতির সামনে বিদ্রোহ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, “আমি বলতে চাই ‘ঘাবরানা নাহি হ্যায়’ (ঘাবরাবেন না)। আল্লাহ পাকিস্তান পরিস্থিতি দেখছেন।”

তিনি বলেন, তিনি পার্লামেন্ট ভেঙে দিতে লিখিতভাবে রাষ্ট্রপতিকে পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি আরো বলেন, গণতন্ত্রীরা জনগণের কাছে যাবে এবং নির্বাচনের মাধ্যমেই নির্ধারিত হবে জনগণ কাকে ক্ষমতায় চায়।

প্রধানমন্ত্রী ইমরান বলেন, আইনপ্রণেতাদের ভোট ক্রয় করার জন্য বিলিয়ন বিলিয়ন রুপি ব্যয় করা হয়েছে। যারা টাকা নিয়েছে, তিনি তাদেরকে পরামর্শ দেন ওইসব টাকা এতিমদের মধ্যে বিলিয়ে দিতে।

তিনি বলেন, নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত হন। কোনো দুর্নীতিপরায়ণ শক্তি দেশের ভবিষ্যত নির্ধারণ করতে পারবে না। পার্লামেন্ট ভেঙে দেয়ার পর পরবর্তী নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু হবে, তত্ত্বাবধাক সরকার গঠনের প্রক্রিয়া হবে।

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ফারুখ হাবিব বলেন, ৯০ দিনের মধ্যে নতুন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

Previous articleপীরগাছায় তরমুজ গাছে ফুল আছে ফল নাই, কৃষকের মাথায় হাত
Next articleকলাপাড়ায় ঈদ ধামাকা র‌্যাফেল ড্র কাউটিং উদ্বোধন
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।