বাংলাদেশ প্রতিবেদক: জাতীয় সংসদের হুইপ ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন বলেছেন,একটা সামান্য কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা, তার মধ্যে বসুরহাট পৌরসভা। সেটার যন্ত্রনায় আমাদের ঘুম নেই, রাত নেই,দিন নেই, আমাদের ঘুম হারাম হয়ে গেছে। পুরো নোয়াখালীর রাজনীতিকে ধ্বংস করছে কোম্পানীগঞ্জের রাজনীতি। নোয়াখালী জেলা কমিটির অধীনে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা। জেলা আওয়ামীলীগ কোম্পানীগঞ্জের বিষয়ে সিন্ধান্ত নিয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের জানাবে।

শনিবার (২০ নভেম্বর) দুপুরে নোয়াখালী জেলা আওয়ামীলীগের প্রতিনিধি সভায় নোয়াখালী জিলা স্কুল মাঠে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বিএনপির অনেক আইনজীবী আছেন তারা আদালতে দ্বারস্থ হতে পারেন। দেশের আইন সবার জন্য সমান, আদালত সম্পূর্ণ স্বাধীন। আদালত যদি নির্দেশনা দেয় সরকার একশত বার বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠাবে। কিন্তু আইন তা পারমিট করে না। উনার অসুস্থতাকে নিয়ে রাজনীতি করছেন। বেগম জিয়ার মুক্তি অথবা চিকিৎসা চান না বিএনপি। বিএনপি বরং বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতাকে নিয়ে রাজনীতি করার চেষ্টা করছে।

তিনি আরও বলেন,আইন সবার জন্য সমান, তারপরও সাবেক প্রধানমন্ত্রী, সিনিয়র সিটিজেন ও একজন রাজনীতিবিদ হিসেবে বেগম জিয়াকে একজন কাজের বুয়াসহ কারাগারে থাকার সুযোগ করে দেওয়া হয়েছিল। এখন তারা রাতে বেলা আমাদের কাছে এসে মানবিক আবেদন করছেন। সংসদের নেত্রীর কাছে মানবিক আবেদন করছেন, আবার তারাই রাজপথে নেত্রীর বিরুদ্ধে বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন। মানবিকতা কাকে বলে সেটা কি বিএনপির কাছে নেত্রী বা আওয়ামী লীগকে শিখতে হবে?

জেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক অধ্যক্ষ আনম খায়রুল আনম চৌধুরী সেলিমের সভাপতিত্বে এবং জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক শিহাব উদ্দিন শাহিন ও শহিদ উল্লাহ খান সোহেলের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, অর্থ পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক বেগম ওয়াসিকা আয়েশা খান এমপি, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক হারুনুর রশিদ, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক বেগম ফরিদুন্নাহার লাইলী, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক ড. সেলিম মাহমুদ।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, নোয়াখালী-১ আসনের সাংসদ এইচএম ইব্রাহিম, নোয়াখালী-৩ আসনের সাংসদ মামুনুর রশিদ কিরণ, নোয়াখালী-৬ আসনের সাংসদ আয়েশা ফেরদৌস, ৩৩ মহিলা সংরক্ষিত আসনের সদস্য বেগম ফরিদা খানম এমপি, হাতিয়া আসনের সাবেক সাংসদ মোহাম্মদ আলী, প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারি মো. জাহাঙ্গীর আলম, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ডা. এ কে এম জাফর উল্যাহ,জেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আবদুল ওয়াদুদ পিন্টু, একেএম সামছুদ্দিন জেহানসহ ৯ উপজেলার পৌরসভা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ের প্রায় ৫ হাজার আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী সম্মেলনে অংশ নেন।

Previous articleআজকের ছাত্ররা আগামী দিনের ভবিষ্যৎ, তারাই একদিন এ দেশের হাল ধরবে: এমপি রতন
Next articleগাইবান্ধায় বালু উত্তোলনকে কেন্দ্র করে হত্যা মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করেছে রংপুর র‌্যাব
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।