বাংলাদেশ প্রতিবেদক: নারায়ণগঞ্জে এক নারীর তিন সন্তান জন্ম নেয়ার পর তাদের নাম পদ্মা সেতুর নামে ‘স্বপ্ন-পদ্মা-সেতু’ নামকরণ করায় শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পৌঁছে দিয়েছেন উপহারস্বরূপ এক ভরি করে তিনটি পৃথক স্বর্ণের চেইন, ফলমূল ও কাপড়।

সোমবার বিকেলে বন্দরের নবীগঞ্জে আওয়ামী লীগ নেতা আশরাফুল ইসলাম অপুর বাড়িতে আসেন প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের প্রটোকল অফিসার শামীম মুসফিক। জানিয়ে গেছেন প্রধানমন্ত্রীর সেই শুভেচ্ছা বার্তা।

এ সময় সাথে ছিলেন বন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কুদরত এ খোদাসহ প্রশাসনের বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তারা। অপুর স্ত্রী এ্যানি বেগম ওই সময়ে তিন সন্তান নিয়ে বাড়িতেই ছিলেন।

তাদের তিন সন্তানের মধ্যে একজন ছেলে ও দু’জন মেয়ে। ছেলের নাম রেখেছেন স্বপ্ন আর মেয়ে দু’জনের নাম রেখেছেন পদ্মা ও সেতু। যা একসাথে হয় স্বপ্নের পদ্মা সেতু। বর্তমানে মা ও সন্তানেরা সকলেই সুস্থ রয়েছেন।

আশরাফুল ইসলাম অপু বলেন, পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের মাসে আমার স্ত্রীর একসাথে তিন সন্তানের জন্ম হয়েছে। এই জন্য ডাক্তার শখ করে তাদের তিনজনের নাম রেখেছেন স্বপ্ন, পদ্মা ও সেতু। আমাদের কাছেও নাম পছন্দ হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের জন্য অনেক কাজ করছেন। আমার সন্তানদের জন্মের মাসে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করা হবে। আর এটিকে স্মরণীয় করে রাখার জন্যই তাদের এমন নাম দেয়া।

এর আগে গত ১৮ জুন নারায়ণগঞ্জ শহরের হেলথ রিসোর্ট হাসপাতাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে সিজারের মাধ্যমে জন্ম নেয় এক ছেলে ও দুই মেয়ে।

এ বিষয়ে চিকিৎসক ডা: বেনজির হক পান্না বলেন, এ্যানি নামে ওই নারী শুরু থেকেই আমার তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন ছিলেন। সম্পূর্ণ সময় নিয়ে এই নবজাতকদের জন্ম হয়েছে। তাদের কোনো সমস্যা নেই। নরমাল ডেলিভারি করা যেতো কিন্তু পেসেন্টের তাগিদে সিজার করতে হয়েছে। একসাথে তিন সন্তান পেয়ে তারা সকলেই খুশি। পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের মাসে একসাথে তিন নবজাতকের জন্ম। এটাকে স্মরণীয় রাখার জন্যই স্বপ্নের পদ্মা সেতুর নামকরণ হিসেবে নবজাতকদের নাম রাখা হয়েছে।

Previous articleনেত্রকোনায় বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতি
Next articleপদ্মা সেতুর উদ্বোধনী দিনে ৩ সেতুর টোল মওকুফ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।