বাংলাদেশ ডেস্ক: পূর্ব লন্ডনের স্টেপনিগ্রীনে তিন সন্তান ও শাশুড়ি নিয়ে বাস করেন আরিফুর রহমান। জনপ্রিয় ইসলামী বক্তা ড. মিজানুর রহমান আজহারীর যুক্তরাজ্য সফরের খবরে নানা ধরনের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন তারা। আজহারির যুক্তিপূর্ণ ও হৃদয়গ্রাহী বক্তব্য শুনতে অনলাইনে টিকিট কিনে রাখেন সবার জন্য। আর ৩১ অক্টোবর মেয়ের ইউনিভার্সিটিতে কোন সময় ক্লাস এবং ছেলের কোচিং কখন তা চিন্তা করে আগে থেকেই সেসবের বিকল্প ব্যবস্থা করে রাখেন তারা। কিন্তু মিজানুর রহমান আজহারীর লন্ডনে আসার স্থগিতের খবরে মন ভীষণ খারাপ তাদের।

লন্ডনের আরিফুর রহমানের মতো লুটন, বার্মিংহাম, লেইস্টার, কার্ডিফ ও ওল্ডহামসহ যুক্তরাজ্যের কয়েকটি শহরের হাজার হাজার মানুষ অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় আছেন তাদের প্রিয় বক্তার বক্তব্য শোনার জন্য। লন্ডনের সাংবাদিক আবদুল কাদির মুরাদ ও মজনু তাদের পরিবারের সকলের জন্য টিকেট কিনেছেন। যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন শহরে বসবাসরত এরকম আরো অনেক বাঙালি পরিবার মিজানুর রহমান আজহারীর ওয়াজ শোনার জন্য অনলাইনে টিকেট কিনেছেন। আজহারীর ভিসা বাতিলের খবরে তারাও উৎকণ্ঠিত। প্রায়ই তারা আয়োজকদের কাছে ফোন করে জানতে চাচ্ছেন, কবে আসছেন প্রিয় মিজানুর রহমান আজহারী। তারা আজহারীর বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগকারী ও তার আগমনের বিরোধীতাকারীদের নিন্দা জানিয়েছেন। তারা এই ঘটনাকে নাস্তিক্যবাদী গোষ্ঠীর চক্রান্ত বলে সবাইকে হুশিয়ার করে দিয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে বিশিষ্ট কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব বিবিসিসিআই’র সাবেক প্রেসিডেন্ট শাহগীর বখত ফারুক বলেন, ‘মিজানুর রহমান আজহারীর মতো এত বড় একজন ইসলামী বক্তা আমাদের দেশে আর নেই। তাই আমি আমাদের কমিউনিটির সর্বস্তরের, সকল বর্ণের, সকল ধর্মের মানুষকে অনুরোধ করবো বিরোধিতা বন্ধ করে আপনারা সবাই আসেন। এসে আপনারা দেখেন মিজানুর রহমান আজহারী কী ধরনের মানুষ, উনি কী ধরনের কথা বলেন। এগুলো শোনার জন্য আমাদের প্রত্যেকের আশা উচিত।’

নিউহাম কাউন্সিলের ডেপুটি স্পীকার ব্যারিস্টার নাজির আহমেদ বলেন, ‘মিজানুর রহমান আজহারী স্মরণকালের সবচেয়ে বড় ইসলামী ব্যক্তিত্ব। লাখো কোটি যুবকের আইডল। আমাদের সকলের সর্বোচ্চ চেষ্টা থাকা দরকার এই উদ্যোগকে স্বাগত জানানোর।’

ব্রিটেনে বাংলাদেশী কমিউনিটির সর্বজন শ্রদ্ধেয় ও সিনিয়র সাংবাদিক কে এম আবু তাহের চৌধুরী বলেন, ‘উনি (আজহারী) যুক্তরাজ্যে আসছেন শুনে আমরা দারুণভাবে খুশি হয়েছিলাম। তাকে যুক্তরাজ্যে স্বাগত জানিয়েছিলাম। আশাকরি তার ভিসা পুনর্বহাল করা হবে এবং তার প্রোগ্রাম সাফল্যমণ্ডিত হবে। এজন্য কমিউনিটির সকলকে এগিয়ে আসার জন্য আমি উদাত্ত আহ্বান জানাচ্ছি।’

গ্রেটার সিলেট কাউন্সিলের চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আতাউর রহমান বলেন, ‘ড. মিজানুর রহমান কোটি কোটি বাঙালি তরুণের আইডল। আমি সবাইকে বলবো, যুক্তরাজ্যে ড. মিজানুর রহমান আজহারীর যতগুলো প্রোগ্রাম আছে সবগুলোকে আমরা যেনো সাফল্যমণ্ডিত করে তুলি।’

ইস্ট লন্ডন মসজিদের ফাইন্যান্স ডিরেক্টর দেলোয়ার হোসাইন খান বলেন, ‘ড. মিজানুর রহমান আজহারীর যে এলেম এবং জ্ঞান তাতে যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশী মুসলিম কমিউনিটি উনার ওয়াজ শুনলে অনেক ফায়দা পাবেন। অনেক বড় প্রেরণা পাবেন। বিশেষ করে মুসলমান হিসেবে আমরা এদেশে কিভাবে সুন্দরভাবে কাজ করতে পারি, কিভাবে অন্য কমিউনিটির মানুষের মাঝে উদাহরণ সৃষ্টি করতে পারি আশাকরি এই বিষয়ে উনি ওয়াজ করবেন এবং সকল বাধা কাটিয়ে অবশ্যই তিনি যুক্তরাজ্যে আসবেন। উনাকে আমরা উদাত্ত আহ্বান জানাই।’

মিজানুর রহমান আজহারীর ভিসা বাতিলের সর্বশেষ
মিজানুর রহমান আজহারী তার বাতিল করা ভিসা পুনর্বহালের জন্য যুক্তরাজ্যের হাইকোর্টে আপিল করেছেন। আপিলের পর কেন মিজানুর রহমান আজহারীর ভিসা বাতিল হলো সে বিষয়ে ব্যাখ্যা দেয়ার জন্য হাইকোর্ট হোম অফিসকে দুই দিনের সময় দিয়েছেন। আয়োজকরা আজহারীর সকল অনুষ্ঠান আপাতত স্থগিত ঘোষণা করেছেন। আশা করা হচ্ছে, আজ বা আগামীকালের মধ্যে মিজানুর রহমান আজহারীর ভিসার বিষয়ে হোম অফিস সিদ্ধান্ত নিবে। নতুন তারিখ ঘোষণা হলে আগের টিকিটেই কনফারেন্স দেখা যাবে বলে আয়োজকরা জানিয়েছেন।

আয়োজকরা আশা করছেন, হোম অফিসের রিপ্রেজেন্টেশনের পরে মাওলানা আজহারীর ভিসা পুনর্বহাল করা হবে।

গত শুক্রবার হোম অফিসের মিডিয়া অ্যান্ড প্রেস অফিসে এই বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে কিছু বাধ্যবাধকতা থাকায় তারা কোনো তথ্য দিতে রাজি হয়নি।

Previous articleরিমান্ডে নির্যাতন করে যুবদল নেতাদের মিথ্যা স্বীকারোক্তি আদায়ের অপচেষ্টা চলছে: রিজভী
Next articleকরোনা : দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ২ জনের মৃত্যু
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।