নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে আজ সকালে একটি কারখানার শ্রমিকদের বকেয়া বেতন-ভাতা না দিয়ে দেয়ালে ৩য় দফা কারখানা বন্ধের নোটিশ দেয়া হয়। এতে কারখানার শ্রমিকদের অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। এই ঘটনায় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা কারখানার সামনে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক প্রায় ৩ ঘন্টা অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন। এতে করে সড়কের উভয় দিকে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। চরম ভোগান্তিতে পড়ে দূরাপল্লার যাত্রী সাধারন।
আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার থেকে অবরোধ শুরু হয় দুপুর ১২ টার দিকে থানা পুলিশ ও শিল্পপুলিশ শ্রমিকদের বুঝিয়ে সড়কে যানচলাচল স্বাভাবিক করেন। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার বরপা এলাকার অন্তিম নিটিং ডাইং অ্যান্ড ফিনিশিং কারখানায় এ শ্রমিক অসন্তোষ দেখা দেয়।
শ্রমিকরা জানান, উপজেলার তারাব পৌরসভার বরপা এলাকায় অবস্থিত অন্তিম নিটিং ডাইং অ্যান্ড ফিনিশিং কারখানার বিভিন্ন সেকশনে প্রায় ১০ হাজার শ্রমিক কাজ করেন। প্রত্যেক মাসের ১০ তারিখের মধ্যে সব সেকশনের বেতন-ভাতা পরিশোধ করার কথা থাকলেও ডিসেম্বর মাসের বেতন চলতি মাসের ১০ তারিখে পরিশোধ না করে গরিমসি শুরু করে মালিকপক্ষ। পরে চলতি মাসের ১৬ তারিখে বেতন পরিশোধ করে দেয়ার কথা বলে ঐ দিন সকালে শ্রমিকদের কোন কিছু না জানিয়ে ২৩ জানুয়ারী পর্যন্ত কারখানা ছুটি ঘোষনা করে ও ২৪ তারিখ বেতন পরিশোধ করা হবে উল্লেখ্য করে কারখানার দেয়ালে নোটিশ লাগিয়ে গেইটে তালা ঝুলিয়ে দেয়।
২৪ জানুয়ারী বৃহস্পতিবার ৯টারদিকে শ্রমিকরা কারখানার সামনে এসে দেখে আগামী ৩১ জানুয়ারী বেতন ভাতা পরিশোধ করা হবে সেই পর্যন্ত কারখান বন্ধ থাকবে উল্লেখ্য করে দেয়ালে আবারো নোটিশ ঝুলিয়ে দিয়েছে কারখানা কর্তৃপক্ষ।
এদিকে, বৃহস্পতিবার সকাল ৯ টার দিকে কারখানার কর্মরত শ্রমিকরা বকেয়া বেতন পাওয়ার আশায় ও কাজে যোগ দেয়ার জন্য আসলে দেখে কারখানার দেয়ালে ফের আগামী ৪ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত কারখানা বন্ধ ও ৫ ফেব্রুয়ারী সকলের বকেয়া বেতন দেয়া হবে বলে নোটিশ লাগিয়ে রেখেছে কারখানা কতৃপক্ষ। এতে শ্রমিকরা বিক্ষুব্দ হয়ে উঠে। একপর্যায়ে তারা ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করে সড়কের টায়ার জ্বালিয়ে দফায় দফায় বিক্ষোভ করে। এতে করে সড়কের উভয় দিকে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে রূপগঞ্জ থানা পুলিশ ও শিল্পপুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। দুপুর ১২টার দিকে জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সার্কেল মো. আনিছউদ্দিন ও শিল্প পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আমিনুর রহমান ঘটনাস্থলে এসে শ্রমিকদের বুঝিয়ে শান্ত সড়ক থেকে সরিয়ে দেন আগামী ৫ তারিখে বকেয়া বেতন নেয়ার জন্য বলেন।
এব্যাপারে কারখানা কতৃপক্ষের সাথে বহুবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও পাওয়া যায়নি।
নারায়ণগঞ্জ শিল্প পুলিশের এসপি জাহিদুল ইসলাম জানান, শ্রমিক অসন্তোষ ও সড়ক অবরোধের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমানে সড়কে যানচলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। বকেয়া বেতনের ব্যাপারে আমরা উর্দ্ধতন কতৃপক্ষের সাথে কথা বলবো।

Previous articleবদলি হচ্ছেন প্রাথমিকের ৫০ হাজার শিক্ষক
Next articleসময়ের সেরা রসিকতা করলেন সিইসি: রিজভী
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।