নীলফামারীতে ৭দিনেও উদ্ধার হয়নি অপহৃত মাদ্রাসা ছাত্রী, মুক্তিপণ দাবি

মহিনুল ইসলাম সুজন: নীলফামারীর কিশোরীগঞ্জ উপজেলায় এক মাদ্রাসা ছাত্রী অপহরনের ৬ দিন অতিবাহিত হলেও আজ রোববার(২৩জুন) উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। উল্টো অপহরনকারীরা মোটা অংকের টাকার দাবির পাশাপাশি মামলা না করার জন্য অপহৃত ছাত্রীর পরিবারকে হুমকী দিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অপহৃত মেয়েটির বাবা বিষয়টি সাংবাদিকদের কাছে তুলে ধরেছেন। মামলা সুত্রে জানা যায়, কিশোরীগঞ্জ উপজেলার বড়ভিটা ইউনিয়নের মেলাবর বালাপাড়া গ্রামের কৃষক আব্দুল হামিদের মেয়ে হাদিকা আক্তার(১৫) ও দক্ষিন মেলাবর দাখিল মাদ্রাসার নবম শ্রেনীর ছাত্রী গত সোমবার(১৭জুন) বেলা ৩টার দিকে মাদ্রাসা ছুটির পর বাড়ি ফিরছিল। পথে একই এলাকার মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে মিনারুল ইসলাম (২৪) সহ তার ভাড়া করা সন্ত্রাসীরা একটি মাইক্রোবাসে জোড়পূর্বক মেয়েটিকে উঠিয়ে অপহরন করে নিয়ে যায়। এ সময় প্রত্যক্ষদর্শী মাদ্রাসার অন্যান্য ছাত্রীরাসহ ওই পথ দিয়ে যাওয়া পথচারী মেলাবর গ্রামের তালেবুর রহমান (৪০) অপহরনকারীদের কাছ থেকে মেয়েটিকে উদ্ধারে ব্যর্থ হয়। ঘটনার দিন বিকেলে মেয়ে অপহরনের ঘটনা নিয়ে বাবা কিশোরীগঞ্জ থানায় এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন। মেয়েটির বাবা অভিযোগ করে বলেন, অপহরনকারীরা মোটা অংকের টাকা দাবি করছে। এ ঘটনায় মামলা না করার জন্য হুমকি-ধামকি দিচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে সাংবাদিকরা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সৈয়দপুর-কিশোরীগঞ্জ সার্কেল) অশোক কুমার পালের সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান, পুরো ঘটনাটি আমরা গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করব।