রংপুরে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট প্রদানে মক ভোট নিয়ে ভোটারদের তেমন কোন সাড়া নেই

জয়নাল আবেদীন: ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন-ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট প্রদানে ভোটারদের সচেতন ও উদ্বুদ্ধ করতে রংপুরে চলছে মক ভোট। বৃহস্পতিবার সকাল দশটা থেকে রংপুর-৩ শুন্য আসনের ১শত ৭৫টি ভোট কেন্দ্রে এ ভোট গ্রহণ কার্যক্রম শুরু হয়। সকাল থেকে রংপুর মহানগরীর বেগম রোকায়া কলেজ, মিস্ত্রীপাড়া, সেনপাড়া, রাধাবল্লব, জুম্মাপাড়া,মুলাটোল, ধাপ, কটকিপাড়াসহ বিভিন ভোট কেন্দ্র ঘুরে দেখা গেছে, ইভিএম পদ্ধতিতে ভোটারদের মধ্যে মক ভোট নিয়ে তেমন কোন সাড়া নেই। ভোট কেন্দ্র গুলোতে অলস সময় পার করছেন ভোট গ্রহণ কর্মকর্তারা। আর কেন্দ্র গুলোর বাহিরে মক ভোটিং নিয়ে তেমন কোন প্রচারনা নেই রংপুর নির্বাচন অফিসের। দুপুরে নগরীর সরকারী বেগম রোকেয়া কলেজ কেন্দ্র, মিস্ত্রীপাড়া স্কুল, জুম্মাপাড়া কেন্দ্রে গিয়ে দেখা গেছে এই তিন কেন্দ্রে ১৯ জন ভোট প্রদান করেছেন। এখানকার ভোট গ্রহণ কর্মকর্তারা সকাল থেকে আমরা ভোট গ্রহণের জন্য এখানে রয়েছি। সকাল থেকে দুপুর ২ টা পর্যন্ত ১৯ জন ভোটার এসে ভোট প্রদান করেছন। সরকারি বেগম রোকেয়া কলেজ কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ কর্মকর্তা ইকবাল জাভীদ জানান, ওই কেন্দ্রে ২ হাজার ৭১ জন ভোটারের মধ্যে ২ জনের ভোট গ্রহণ করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত ভোটার উপস্থিতি বা সাড়া কোনটাই মিলছে না। তবে কেন্দ্রের বাহিরে ভোটারদের ডেকে ডেকে আনার চেষ্টা করা হচ্ছে। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত একই চিত্র দেখা গেছে, রংপুর সিটি করপোরেশন এলাকার শেষ সীমানা সিলিমপুর শিশু মঙ্গল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে মোট ভোটার সংখ্যা একহাজার ছয়শত পঞ্চাশ জন কিন্তু মগ ভোট পড়েছে মাত্র ২৯টি ,লায়ন্স স্কুল এন্ড

কলেজ কেন্দ্রে সেখানে ২জন ভোট প্রদান করেছে। সালেমা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ১৩ জন, সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৩ জন এবং মুলাটোল আলিয়া মাদ্রাসাতে ৪ জন ভোট প্রদান করেছেন। নগরীর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম বলেন, ওই কেন্দ্রের ৩ হাজার ৯৪২ জন ভোটারের মধ্যে ১১ জন ভোট প্রদান করেছেন। তবে বিকেলে আগে ভোটার উপস্থিতি বাড়তে পারে বলে জানান তিনি। কেন্দ্র গুলোতে মক ভোট দিতে আসা ভোটারদের মধ্যে পুরুষ ভোটারদেরই দেখা মিলছে। কোন কেন্দ্রে নারী ভোটারের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি। রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার জি.এম সাহাতাব উদ্দিন বলেন, ভোটারদের সচেতন ও ভোটদানে উদ্বুদ্ধ করতে আমাদের কার্যক্রমে কোন ঘাটতি নেই। কয়েকদিন ধরে নির্বাচনী এলাকাতে মক ভোটের ব্যাপারে মাইকিং ও প্রচার চালানো হয়েছে। মিডিয়ার মাধ্যমেও সবাইকে উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে। রংপুর-৩ শুন্য আসনে আগামী ৫ অক্টোবর উপ-নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এই আসনে ছয় প্রার্থী প্রতিদ্ব›দ্বীতা করছে। এখানে ১৭৫টি ভোট কেন্দ্রের ১ হাজার ২৩ গোপন কক্ষে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন ৪ লাখ ৪১ হাজার ২২৪ জন ভোটার।