নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে ২বিজিবি সদস্য গুলিবিদ্ধ

কায়সার হামিদ মানিক: বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তে বিজিবির সঙ্গে চোরাকারবারি চক্রের গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ২ বিজিবি সদস্য গুলিবিদ্ধ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। সোমবার (১১ নভেম্বর) রাতে সাড়ে ৮টার সময় এ ঘটনা ঘটে। আহত দুই বিজিবি সদস্যদের চট্টগ্রাম ও রামু সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) ভর্তি করা হয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানিয়েছে, সীমান্তের তুমব্রু বাইশফাড়ি বিওপির বি‌জি‌বির একদল সদস্য সীমান্তে নিয়মিত টহলে যান। এসময় বাইশফাড়ি মিয়ানমার সীমান্তের ৩৬ নম্বর সীমান্ত পিলারের রাস্তার মাথা নামক থোয়াইংগা পাড়ায় মাদক কারবারিরা বি‌জি‌বি’র টহল দলকে লক্ষ্য করে গু‌লি চালায়। এসময় তাদের গুলিতে দুই বি‌জি‌বি সদস্য গু‌লি‌বিদ্ধ হ‌ন। পরে পু‌লিশ ও বি‌জি‌বি ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের উদ্ধার করে বলে জানা যায়।
বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরাও চোরাকারবারি চক্রের ওপরে গুলি বর্ষণ করে। দু’পক্ষের মধ্যে বেশ কয়েক রাউন্ড গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এসময় চোরাকারবারি চক্রের গুলিতে কক্সবাজার ৩৪ ব্যাটেলিয়নের নিয়ন্ত্রিত বাইশফাড়ি বিজিবি ক্যাম্পের সিপাহী মৃত্যঞ্জয় এবং সিপাহী ফরিদ উদ্দিন গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হন। বিজিবি সদস্য দুজনই বাম পায়ের হাঁটুর নিচে গুলিবিদ্ধ হয়। খবর পেয়ে বিজিবি সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে রামু সিএমএইচ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। তবে এই ঘটনায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।
এদিকে, সীমান্তে বিজিবি-চোরাকারবারি চক্রের গোলাগুলির ঘটনায় সীমান্ত অঞ্চলের মানুষের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। তবে কারা বিজিবি সদস্যদের ওপরে গুলিবর্ষণ করেছে বিষয়টি এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বিজিবি কক্সবাজার রিজিওন কমান্ডার মো. সাজেদুল রহমান এবং বিজিবির কক্সবাজার সেক্টর কমান্ডার কর্নেল মঞ্জুরুল হাসান খান বলেন, সীমান্তে দুষ্কৃতকারীদের গুলিতে ২ বিজিবি সদস্য আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে সিপাহী ফরিদ উদ্দিনকে চট্টগ্রাম সিএমএইচে নেয়া হয়েছে। মৃত্যুঞ্জয়কে রামু সিএমএইচ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।