বাউফল আ’লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন: সভাপতি আ.স.ম. ফিরোজ, সম্পাদক মোতালেব

অতুল পাল: আজ বৃহষ্পতিবার বাউফল উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলার পূরাতণ কোর্ট বিল্ডিং মাঠে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। পটুয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক ধর্মপ্রতিমন্ত্রী এ্যাডভোকেট শাহজাহান মিয়া সম্মেলনের উদ্বোধন করেন। সম্মেলনে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পটুয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক কাজী আলমগীর। সম্মেলনে সভাপতিত্বে করেন বাউফল উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক চীফ হুইপ আ.স.ম. ফিরোজ এমপি। জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, শান্তির প্রতিক পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে সম্মেলন শুরু করা হয়। সম্মেলনের উদ্বোধন বেলা ১০টায় শুরু হওয়ার কথা থাকলেও পটুয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বাউফল পৌর সভার মেয়র জিয়াউল হক জুয়েলের নেতৃত্বে একই দিনে আরেকটি সম্মেলন অনুষ্ঠানের ঘোষণা দেয়ায় জেলা নেতৃবৃন্দ সম্মেলনে অংশ নিতে দ্বিধাদ্বন্দে পরে যান। অবশেষে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে বরিশাল বিভাগের দায়িত্বে থাকা কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের এক যুগ্ন সম্পাদকের ফোন পেয়ে বেলা একটায় জেলা নেতৃবৃন্দ আ.স.ম. ফিরোজের নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে উপস্থিত হন। সম্মেলনকে কেন্দ্র করে উপজেলার ১৫টি ইউনিয়ন এবং পৌরসভা থেকে প্রায় ত্রিশ হাজার নেতাকর্মী ও সমর্থক ব্যানার, ফেষ্টুন ও বাদ্য-বাজনা নিয়ে মিছিল করতে করতে সম্মেলনস্থলে যোগ দেন। সম্মেলনে আসা মানুষের ভিরে বাউফল-কালাইয়া, বাউফল-বগা এবং বাউফল-কালিশুরী সড়কে যান চলাচলে স্থবিরতা নেমে আসে। সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সূর্যমনি ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বাচ্চু, বাউফল পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি নাজিরপুর ইউপি চেয়ারম্যান ইব্রাহিম ফারুক, বাউফল উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল মোতালেব হাওলাদার, পটুয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক আবদুল মান্নান প্রমূখ। প্রধান বক্তা হিসেবে পটুয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক কাজী আলমগীর তার বক্তব্যে বলেন, “এই সম্মেলনে দেরিতে উপস্থিত হওয়ায় আমি আসামির কাঠ গোড়ায়”। আমরা জানি, আ.স.ম. ফিরোজের নেতৃত্বে বাউফল আজ আওয়ামী লীগের দুর্গ হয়েছে। তারই ফলশ্রুতিতে আপনাদের ভালবাসায় আ.স.ম. ফিরোজ সাত বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। ফিরোজ ভাই আমারও নেতা। প্রধান অতিথি পটুয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক ধর্ম প্রতিমন্ত্রী এ্যাডভোকেট শাহজাহান মিয়া বলেন, সম্মেলনকে কেন্দ্র করে এরকম হাজার হাজার লোকের সমাগম দেখে আমি অভিভূত। এটা আ.স.ম. ফিরোজের দ্বারাই সম্ভব। বেলা সারে তিনটায় সম্মেলনের প্রথম অধিবেশন শেষ হয় এবং বেলা সারে চারটায় দ্বিতীয় অধিবেশন শুরু হয়। প্রতি ইউনিয়ন থেকে একত্রিশ জন করে কাউন্সিলর অংশ নেন। দ্বিতীয় অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট শাহজাহান মিয়া এবং সভা পরিচালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক কাজী আলমগীর। দ্বিতীয় অধিবেশনের শুরুতে বর্তমান কমিটি বিলপ্ত ঘোষণা করা হয়। পরে কাউন্সিলরদের প্রস্তাব ও সমর্থনের মাধ্যমে আগামি তিন বছরের জন্য আ.স.ম. ফিরোজকে সভাপতি, রায়হান সাকিবকে সহসভাপতি এবং আবদুল মোতালেব হাওলাদারকে সাধারন সম্পাদক করে একাত্তর সদস্য বিশিষ্ট বাউফল উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি ঘোষণা করা হয়। সম্মেলনকে কেন্দ্র করে সন্ধায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে আয়োজন করা হয়।