বেলকুচিতে রাতের আধারে কনকনে শীতে যুবলীগের আহবায়কের কম্বল বিতরণ

এম এ মুছা: সিরাজগঞ্জ বেলকুচি পৌর এলাকায় কনকনে শীতে, রাতের আধারে ঘুরে বাড়ী বাড়ী গিয়ে শীতার্ত মানুষকে ঘুম থেকে ডেকে তুলে প্রতিনিয়তই কম্বল বিতরণ করছেন বেলকুচি উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক সাজ্জাদুল হক রেজা। এ বছর শীতের শুরুতেই তীব্রভাবে শীত পরে, কিন্তু তেমন কোন জনপ্রতিনিধিকে দেখা না গেলেও যুবলীগের আহবায়ক সাজ্জাদুল হক রেজা শীতের প্রথম থেকেই রাস্তাঘাটে পৌর এলাকার বিভিন্ন পাড়া- মহল্লায় দুস্থ অসহায় শীতার্ত মানুষকে প্রতিনিয়তই শীতবস্ত্র বিতরণ করছেন। শনিবার (১লা ফেব্রুয়ারী) গভীর রাতে বেলকুচি পৌর এলাকার শেরনগর, কামারপাড়া এলাকায় গরীব দুস্থ অসহায় মানষকে কম্বল বিতরণ করেন। এ সময় এলাকায় দুঃস্থ, অসহায় ও প্রতিবন্ধী‌দের মাঝে ১৫০টি কম্বল বিতরণ করা হয়। কনকনে শীতে হঠাৎ কম্বল পেয়ে আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন অসহায় দুস্থ গরীব মানুষগু‌লো। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সাজ্জাদুল হক রেজা জানান, আমাদের দেশে পৌষ-মাঘ দুই মাস শীতকাল। হাড়কাঁপানো শীতে বেলকুচি পৌর এলাকার দরিদ্র ও ছিন্নমূল মানুষ। প্রতি বছর এ সময়ে শীত-শৈত্যপ্রবাহ বিরাজ করে। দিনের বেলায় সূর্যের মুখ প্রায়ই দেখা যায় না। হিম বায়ু আর ভারী কুয়াশার সঙ্গে কমে যায় সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। প্রকৃতির পরিবর্তন এবং বিরূপ প্রভাব মহান আল্লাহর শ্রেষ্ঠত্বের প্রমাণ বহন করে। শীতের এ সময় আমাদের সামাজে যারা বিত্তবান তাদের

সমাজের দুস্থ অসহায় মানুষের জন্য কিছু করার দায়বদ্ধতা রয়েছে। আমাদের চারপাশের অনেক দুস্থ গরীব এবং অসহায় মানুষ রয়েছে যাদের দু-বেলা দু-মুঠো খেতে পায়না, এই কনকনে শীতে তাদের পাশে দাড়ানো উচিত। আমার সাধ্যশক্তিতে যতটুকু সম্ভব পৌর এলাকার দুস্থ গরীব অসহায় মানুষকে তীব্র শীতে তাদের শীতবস্ত্র দিয়ে একটু সহযোগীতা করছি। আপনারা আমার জন্য দোয়া করবেন আমি আপনাদের পাশে আছি এবং থাকবো। এ সময় শীতবস্ত্র বিতরষণ কালে উপস্থিত ছিলেন,যুবলীগের রফিকুল ইসলাম, মাসুদ রানা, ইছা আহাম্মেদ, ছাত্রলীগ নেতা জুয়েল রানা, ফরিদুল ইসলাম, শাহাদৎ হোসেন, বাবু সরকার ও এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ছিলেন।