যৌন নির্যাতনের শিকার গৃহবধু ও তার দিনমজুর স্বামী মুরাদ হোসেন

তাবারক হোসেন আজাদ: দিনমজুর স্বামী সারাদিন কাজ শেষে রাতে ক্লান্ত শরীরে বাড়ী ফেরেন। এসুযোগে লম্পট শশুরের চোখ পড়ে সুন্দরী পুত্রবধুর দিকে। গত এক বছর ধরে পুত্রের অনুপুস্থিতে নানান লোভ ও নাতিকে হত্যার ভয় দেখিয়ে যৌন নির্যাতন করে চলেছেন শশুর। অসহায় পরিবারের সন্তান হওয়ায় হত্যার ভয়ে কারো কাছে বিচার চাইতে পারেনি মেয়েটি। সম্প্রতি ইউপি সদস্যসহ এলাকার কয়েকজন মাতবর গোপনে বৈঠকে বসলে গৃহবধু তার শশুরের বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের বিচার চাইলে তা ভেঙ্গে যায় ও তোলপাড় শুরু হয়। ঘটনাটি ঘটেছে লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলার চরপাতা ইউপির চোধুরী পুল সড়ের তালতলা এলাকায়।

বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর)-সরজমিন গেলে, গৃহবধু, তার স্বামী, গ্রামপুলিশ নানা ও গ্রামবাসী ধর্ষক আলী আহাম্মদের বিচার দাবি করেছেন।

ক্ষতিগ্রস্থ গৃহবধু ও তার স্বামী সাংবাদিকদের জানান, প্রায় দেড় বছর আগে পারিবারিকভাবে তাদের বিয়ে এবং সংসারে ৮ মাসের এক ছেলে রয়েছে। দিনমজুর কাজের সুবাধে সারাদিন বাহিরে থাকার পর ক্লান্ত শরীরে রাতে বাড়ী ফেরে ঘুমিয়ে পড়েন গৃহবধুর স্বামী। কিন্তু লম্পট শশুরের কু-নজর পড়ে সুন্দরী গৃহবধুর দিকে। গৃহবধু যখন সংসারের কাজ শেষে একা কক্ষে থাকতেন তখন তাকে জড়িয়ে ধরতেন শশুর। কয়েকবার নিষেধ করা সত্তেও তা শুনতেন না । একবার শশুরের এ অনৈতিক কান্ড শাশুরিও দেখেছিলেন। কিন্তু তিনি কিছুই বলতেন না এবং বিচারও পেতো না গৃহবধু । উল্টো শিশু বাচ্চাকে হত্যার ভয় দেখিয়ে গৃহবধুকে দিনের পর দিন যৌন নির্যাতন করে চলেছে শশুর। এঘটনা অসহায় স্বামীকে জানালে যদি তালাক দেয়, তাই তাকেও বলা হয়নি। একদিন স্বামী সন্ধায় বাড়ী ফিরে দেখেন স্ত্রীর উপর পিতার যৌন নির্যাতন দেখলে প্রতিবাদ করেন । এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সকল সম্পদ থেকে বঞ্চিত সহ হত্যা করার হুমকি দেয় শশুর ও শাশুরী। পরে গৃহবধু বাধ্য হয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ গন্যমান্য কয়েকজনকে জানালে রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) রাতে একটি বাড়ীতে গোপন বৈঠক বসা হয়। এতে ওই গৃহবধু তার উপর নির্যাতনের ঘটনায় শশুর ও শাশুরীর বিচার দাবি করেন। একপর্যায়ে ধর্ষনের বিচার পুলিশ ছাড়া কোন ব্যাক্তির পক্ষে সম্ভব না বলে বৈঠক ভেঙ্গে দেন ইউপি সদস্য। সাংবাদিক বা পুলিশকে ঘটনাটি না জানানো হয়, সে জন্য জমি ও বিল্ডিং করে দেয়ার লোভ দেখানো হচ্ছে। লম্পট শশুরের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে ভয় পাচ্ছন গৃহবধু।

এঘটনায় অভিযুক্ত আলী আহাম্দ সাংবাদিকের উপস্থিতি বুঝতে পেরে পালিয়ে যায় ধর্ষক আলী আহাম্মদ। তবে তার স্ত্রী খুকি বেগম বলেন, জমি ভাগ করে না দেয়ায় আমার স্বামীর বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ তুলেছে ছেলের বউ।

চরপাতা ইউপি সদস্য আমিন পাটোয়ারী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, প্রথমে নীজেদের পারিবারিক সমস্যা মনে করেছিলাম। বৈঠকে বসার পর অসহায মেয়েটির উপর শশুর কর্তৃক যৌন নির্যাতনের ঘটনা জানতে পারি। এঘটনা পুলিশ ছাড়া বিচার হবেনা বলে তা ভেঙ্গে দেয়া হয়।

রায়পুর থানার ওসি আবদুল জলিল বলেন, ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। ওই এলাকায় খোঁজ খবর নিয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।