ফিরোজ সুলতান: পাঁচটি সিলিন্ডার পরিবর্তনের পরেও অক্সিজেনের অভাবেই ঠাকুরগাঁওয়ে শিশু সামারা ফালাক (দশ মাস) এর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বাবা মোহাম্মদ ফয়সাল। তবে পর্যাপ্ত অক্সিজেন সরবরাহ করা হয়েছিলো বলে দাবি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের।

রোববার (১৩ই ডিসেম্বর) সকালে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে।

শিশুটির বাবা মোহাম্মদ ফয়সাল জানান, জন্মের পর থেকেই আমার শিশুটি হার্ডের সমস্যায় ভুগছিলো। গত ৬ মাস আগে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল (সিএমএইচ) এ হার্ডে তার অস্ত্রপচার করা হয়েছিলো। পরে কিছুটা সুস্থ্য হলে তাকে ঠাকুরগাঁওয়ে নিয়ে আসা হয়। গত শনিবার রাতে অসুস্থ্য হয়ে পড়লে দ্রæত হাসপাতালে নেওয়া হয় তাকে। সেখানে ডাক্তারের পরামশে অক্সিজেন দেওয়া হয়। সে অক্সিজেন সঠিকভাবে পাচ্ছেনা সন্দেহ হলে আমি উপস্থিত নার্স ও ওয়ার্ড বয়কে জানাই। তারা একে একে ৫টি সিলিন্ডার পরিবর্তন করার পরেও আমার শিশু অক্সিজেন সঠিকভাবে পায়নি । এর ফলেই তার মৃত্যু হয়েছে।

ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালের তত্ত¡াবধায়ক ডা. নাদিরুল আজিজ চপল জানান, শিশুটি রাতে অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তারা তাকে বিবিন্ন কিলনিকে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে অবস্থা বেগতিক দেখে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন এবং তার আগে অক্সিজেনের লাগানোর পরামর্শ দেন। তার পরামর্শেই শিশুটিকে অক্সিজেন দেয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তবে শিশুটির বাবার অভিযোগের প্রেক্ষিতে তিনি বলেন, আমাদের এখানে স্বয়ংক্রিয় অক্সিজেন কন্সেনট্রেটর মেশিন রয়েছে। যেটি নিজেই অক্সিজেন তৈরী করতে পারে। এছাড়াও শিশুটির অবস্থা বেশ খারাপ ছিলো বলেই তার পাশে একাধিক সিলিন্ডার রাখা হয়েছিলো।