তাবারক হোসেন আজাদ: লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে স্থানীয় সন্ত্রাসী কর্তৃক স্কুল মাঠের মাঠি লুট ও এতে বাঁধা দেয়ায় প্রধান শিক্ষককে হুমকির ঘটনায় তোলপাড় চলছে। এঘটনায় বৃহস্পতিবার (১৭ ডিসেম্বর) বিচার দাবি ও সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়ে সহকারি কমিশনার কমিনার ও ওসির কাছে লিকিত অভিযোগ করেছেন প্রধান শিক্ষক বিজয় কৃষ্ণ কিত্তনিয়া। ঘটনাটি ঘটেছে ২০১৮ সালের ৫ ফেব্রুয়ারী ও চলতি বছরের ১১ ডিসেম্বর দক্ষিন উপজেলার চরআবাবিল ইউপির চরআবাবিল এসসি উচ্চ বিদ্যালয়ে।

অভিযুক্তরা হলেন, দক্ষিন চরআবাবিল ইউপির গাইয়ারচর গ্রামের জহির আলম,পাঙ্গাসিয়া গ্রামের ইব্রাহিম মৈশাল, একই গ্রামের রোমান হোসেন ও মধ্যম গাইয়ারচর গ্রামের মোঃ ফজলু।

প্রধান শিক্ষকের দায়ের করা অভিযোগে জানাযায়, প্রায় ২০ বছর আগে সাবেক জেলা প্রশাসকের অনুদানে স্কুলের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও স্থানীয়দের জন্য ওয়াবদার খালের পাশে একটি ঘাটলা করে দেন। কিন্তু ২০১৮ সালের ৫ ফেব্রুয়ারী ওই ঘাটলাটি ভেঙ্গে রড ও ইটগুলো নিয়ে গিয়ে লক্ষাধিক টাকার ক্ষতিগ্রস্থসহ ওই স্থানে নীজের ইচ্ছেমত তিনটি দোকান নির্মানের প্রস্তুতি নেয় অভিযুক্তরা। পরে লিখিত অভিযোগের মাধ্যমে ইউএনও’র মাধ্যমে তা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

গত শুক্রবার (১১ ডিসেম্বর) সকালে অভিযুক্তরা স্কুলের মাঠ ভরাট করার জন্য রাখা স্তুপ করার লক্ষাধিক টাকার মাটি নিয়ে যায়। এসময় বাঁধা দিলে অভিযুক্তরা বিভিন্ন ক্ষতিসহ হত্যা করার হুমকি দেয়া হয়। ঘটনাটি নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা দেখা দিলে ১৩ ডিসেম্বর স্কুল সভাপতি লক্ষ্মীপুর আদালতের এডভোকেট আব্দুল মান্নান মুন্সির সভাপতিত্বে বৈঠকে হয় এবং রেজুলেশনের মাধ্যমে ঘটনাটি ইউপি চেয়ারম্যান, ইউএনও, এসিল্যান্ড ও ওসিকে লিখিত অভিযোগে জানানো হয়েছে।

এঘটনায় অভিযুক্তদের বক্তব্য জানার চেষ্টা করলে, তারা এলাকায় না থাকায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

রায়পুর সহকারি কমিশনার ভুমি আক্তার জাহান সাথী মোবাইল ফোনে জানান, স্কুল সংক্রান্ত ও হত্যার হুমকির বিষয়ে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন প্রধান শিক্ষক। তা তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।