তাবারক হোসেন আজাদ: নীজেদের বাড়ীতে মায়ের কক্ষে বসে দুই ভাই-বোন টেলিভিশন দেখছিলো। ভাই বলে কার্টুন দেখবে। বোন বলে ষ্টার জলশা দেখবে। রিমোট নিয়ে দু’জনের মধ্যে-ঝগড়া হয়। অবশেষে ভাই’র উপর অভিমান করে অন্য কক্ষে গিয়ে ঘরের আড়ার সাথে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্নহত্যা করে বোন। মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার রাতে (২১ ডিসেম্বর) লক্ষ্মীপুরের রায়পুর বামনী ইউপির কাজের দিঘির পাড় এলাকায়।

নিহত শিশু জান্নাত আক্তার প্রিমা (৯) একই এলাকার শিপনের মেয়ে ও কাজেরদিগির পাড় আলিম মাদ্রাসার ৪র্থ শ্রেণীর মেধাবি ছাত্রী।

শিশুর কয়েকজন স্বজন জানান, ছোট ভাই রিমোট নিয়ে টিভিতে কার্টুন দেখছিলো। এসময় বড় বোন প্রিমা স্টার জলসা দেখার জন্য রিমোট চায় ভাই’র কাছে। এনিয়ে উভয়ের মধ্যে ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে ছোট ভাই বড় বোন প্রিমার গালে থাপ্পর মারে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে অভিমান করে প্রিমা তার কক্ষষে গিয়ে আড়ার সাথে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্নহত্যা করে। কিছুক্ষন পর জানালা দিয়ে বড় বোনকে ওড়নায় ঝুলতে দেখে চিৎকার দেয় ছোট ভাই। তাদের মা রান্না ঘর থেকে দৌঁড়ে এসে দরজা ভেঙ্গে প্রিমাকে উদ্ধার করে রায়পুর হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তার মৃত ঘোষনা করেন।

বামনী ইউপি সদস্য সাহাবুদ্দিন সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ঘটনাটি মর্মান্তিক। পরিবারের সাথে আমরাও শোকাহত।

রায়পুর থানার ওসি আবদুল জলিল বলেন, নিহত শিশুর লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এঘটনায় থানায় ইউডি মামলা হয়েছে।