জয়নাল আবেদীন: রংপুরের পীরগঞ্জে অবৈধ চারটি ইটভাটায় অভিযান পরিচালনা করেছে জেলা প্রশাসন। পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র ও ইট পোড়ানোর অনুমোদন না থাকায় ওইসব ইটভাটাকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে আট লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত পীরগঞ্জ উপজেলার বিভিন্নস্থানে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদ হাসান মৃধার নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে র‌্যাব-১৩, পরিবেশ অধিদপ্তর ও ফায়ার সার্ভিস সহযোগিতা করে।অভিযানে পীরগঞ্জের চতরা এলাকার হাবিবুর রহমানের মেসার্স অনিক ব্রিক্সস ভাটাটি আংশিকভাবে ভেঙ্গে ফেলা হয়। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ওই ভাটার মালিককে ২ লাখ টাকা জরিমানা ও চার মাসের মধ্যে ইটভাটাটি সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করার নির্দেশ দেয়া হয়। মেসার্স অনিক ব্রিক্সস প্রশাসনের অনুমতি ও পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র ছাড়াই নিষিদ্ধ এলাকায় গড়ে তোলা হয়।এছাড়া একই উপজেলার মুকিমপুরে শহীদুল ইসলামের মেসার্স এসএমএস ব্রিকস, দাড়িকাপাড়ার রাজা মিয়ার মেসার্স আরএসবি ব্রিকস্ এবং জাহিদপুরের শহীদুল ইসলামের মেসার্স এইচএনবি ব্রিকস্ ভাটাকে দুই লাখ টাকা করে জরিমানা করে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এসব ইটভাটায় সনাতন পদ্ধতিতে স্থায়ী চিমনী স্থাপন করে ইট তৈরি করা হতো। যা আইন অনুযায়ী নিষিদ্ধ।রংপুর জেলার সকল উপজেলায় এ ধরনের অভিযান অব্যাহত রাখার কথা জানিয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদ হাসান মৃধা বলেন, পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর এবং সরকারিভাবে নিষিদ্ধ বিভিন্ন কার্যক্রম বন্ধে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।তিনি আরো জানান, নির্দেশনা অমান্য করে ইটভাটা তৈরি, পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর কার্যক্রম পরিচালনার অপরাধে ৪টি ইটভাটার মালিককে ৮ লাখ টাকা অর্থদÐ প্রদান করা হয়। এছাড়া কয়েকটি ইটভাটায় পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর স্থাপনা ও অবৈধ স্থাপনা ধ্বংস করা হয়।অভিযানে আরও উপস্থিত ছিলেন- রংপুর জেলা পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মোঃ ইউসুফ আলী, পরিদর্শক মনোয়ার হোসেন, র‌্যাব-১৩ এর সহকারী পরিচালক মোঃ জামালসহ আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও পীরগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এর সদস্যরা।