জয়নাল আবেদীন: রংপুর মেট্রোপলিটন এলাকায় এক বছরে ১ কোটি ১৯ লাখ ৯৪ হাজার ২শ টাকার মাদকদ্রব্য উদ্ধার হয়েছে ।এর মধ্যে ১১ হাজার ১শ৮৩ পিস ইয়াবা, ৭শ৯০ বোতল ফেনসিডিল, দেশি-বিদেশি ৫ হাজার ৭শ৬৮ লিটার মদসহ গাঁজা ও হেরোইন রয়েছে। রংপুর মেট্রেপলিটন পুলিশের প্রতিটি সদস্যকে পর্যাক্রমে ডোপ টেষ্ট করা হবে । ইতিমধ্যে ১১জন সদস্য‘র ডোপ টেষ্টে প্রত্যেকের নেগেটিভ রেজাল্ট পাওয়া গেছে ।বুধবার দুপুরে গত বছরের সফলতা তুলে ধরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন আরপিএমপি কমিশনার মোহাম্মদ আবদুল আলীম মাহমুদ।রংপুর নগরে মাদক নিয়ন্ত্রণ এবং পুলিশের মধ্যেও সংঘটিত অপরাধ দমনে কাউকে ছাড় দেয়া হচ্ছে জানিয়ে কমিশনার বলেন, এক বছরে ১৯টি চাঞ্চল্যকর খুন ও ক্লুলেস মামলা রহস্য উদঘাটন হয়েছে। গত বছরে আরপিএমপির অপরাধ বিভাগের ৩টি জোনে ছয়টি থানায় ১ হাজার ৫শ০৮টি মামলা দায়ের হয়েছে। এসব মামলার মধ্যে ১হাজার৫শ১৩টি মামলার তদন্ত শেষে করে নিষ্পত্তি করাসহ ৩ হাজার ৪শ৭৮ জন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়া এক বছরে ট্রাফিক বিভাগের দুইটি জোনের অধীনে ৪৮ হাজার ১৪টি মামলা এবং ২ কোটি ২১ লাখ ৫ হাজার ১শ৫০ টাকা জরিমানা আদায় করেছে। একই সময়ে ১ হাজার ৬শ৫৭টি যানবাহন আটক করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।এক বছরে গোয়েন্দা বিভাগের বিভিন্ন অভিযানে ৩ কোটি ৬৬ লাখ ৫০ হাজার টাকার বিভিন্ন অবৈধ মালামাল, পণ্য সামগ্রী, অবৈধভাবে সংরক্ষণ করা ওএমএস এবং টিসিবির পণ্য উদ্ধার করা হয়। একই বছরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে পরিচালিত বিভিন্ন অভিযানে নকল পণ্য উৎপাদন ও সরবরাহকারী, অস্বাস্থ্যকর খাদ্য উৎপাদনকারী, মেডিকেল, ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও ক্লিনিকের দালাল চক্র এবং প্রতারকদের আটক করে ২৪ লাখ ৬৫ হাজার ১শ টাকা জরিমানা আদায় করা হয় বলে জানান কমিশনার আবদুল আলীম মাহমুদ। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- আরপিএমপির উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর দপ্তর) মহিদুল ইসলাম, উপ-পুলিশ কমিশনার (অপরাধ) আবু মারুফ হোসেন, উপ-পুলিশ কমিশনার আবু সায়েম, উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) মেনহাজুল আলম, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিবি ও মিডিয়া) উত্তম প্রসাদ পাঠক প্রমুখ। উল্লেখ্য, রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (আরপিএমপি) হল বাংলাদেশ পুলিশের একটি বিভাগ। রংপুর মহানগরীতে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার দায়িত্ব পালন করে থাকে। ২০১৮ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর আনুষ্ঠানিক ভাবে আরপিএমপির যাত্রা শুরু হয়। ২০১১ সালের ৮ই জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রংপুর সফরকালে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ গঠনের প্রতিশ্রুতি দেন। এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৭ সালের ১০ ডিসেম্বর ১ হাজার ১শ৮৫টি পদ নিয়ে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কার্যক্রম শুরু হয় এবং ১৯ এপ্রিল তা গেজেট আকারে প্রকাশিত হয়। ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে জাতীয় সংসদে রংপুর মহানগরী পুলিশ বিল-২০১৮ পাস হয়। ১০লাখের বেশি জনসংখ্যা নিয়ে ২শ’ ৩৯ দশমিক ৭২বর্গ কিলোমিটার আয়তনের রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (আরপিএমপি) এর

কার্যক্রম কোতয়ালী, পরশরাম, হাজিরহাট, মাহিগঞ্জ, হারাগাছ এবং তাজহাট এই ৬টি থানা নিয়ে পরিচালিত হচ্ছে কার্যক্রম।