মারুফা মির্জা: ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার শ্রী সঞ্জীব ভাটি বলেছেন, খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজ পাঠ দানে অনন্য অবদান রাখছে। এর যুগোপযোগী শিক্ষা ব্যবস্থা ও ক্যাম্পাস বাংলাদেশের মধ্যে সেরা। শুধু তাই নয় এখান থেকে ভারতীয় যারা পাশ করে বের হচ্ছে তারা ইন্ডিয়ান মেডিকেল কাউন্সিল (এমসিআই)-এর পরীক্ষায়তেও শীর্ষ স্থান লাভ করছে। ১ থেকে ১০ জনের মধ্যে মেধা তালিকায় থাকছে বাংলাদেশের খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজে পড়–য়া ভারতীয় ছাত্র-ছাত্রীরা। এজন্যই বিদেশে উচ্চ শিক্ষা গ্রহন করতে ইচ্ছুক ভারতীয় শিক্ষার্থীদের প্রধান আগ্রহ খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজ। তিনি মঙ্গলবার বিকেলে মানব হিতৈষী কর্মবীর ডাঃ এম এম আমজাদ হোসেনের প্রতিষ্ঠিত সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুরের খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজ মিলেনায়তনে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন। শ্রী সঞ্জীব ভাটি আরো বলেন, সমাদৃত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি এক দিকে উচ্চ শিক্ষা প্রসারে ভুমিকা রাখছে, অপরদিকে মানবিকতার দীক্ষাও দিচ্ছে। তাই প্রতিষ্ঠানের উদ্যোক্তারা এজন্য সফলতার দাবীদার। এছাড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি ও হাসপাতালের অনন্য স্থাপত্য শৈলী আমাদের মুগ্ধ করেছে। এসময় খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডাঃ সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে ভারতীয় হাই কমিশনের এডুকেশন মিনিষ্টার অক্ষয় জোশী, মেডিকেল কলেজের কমিউনিটি মেডিসিন বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডাঃ শৈলন্দ্রনাথ বিশ্বাস এবং ভারতীয় ৫ম বর্ষের শিক্ষার্থী আমির আমিন বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে কলেজের শিক্ষক, ভারতীয় শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এরপর সহকারী হাই কমিশনার খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল পরিচালনা পরিষদের পরিচালক মোহাম্ধসঢ়;দ ইউসুফের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। উল্লেখ্য, এই খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজে ২৩৩ জন ভারতীয় শিক্ষার্থী অধ্যায়নরত এবং ৭৪ জন পাশ করে বের হয়ে গেছে। বর্তমানে এখানে প্রতিবছর ৫০ শতাংশ বিদেশী শিক্ষার্থী লেখা-পড়া করছে। এর শতভাগ ভারতীয়।

Previous articleরাষ্ট্রীয় চিনিকল লুটপাটের প্রতিবাদে ঠাকুরগাঁওয়ে বাম জোটের সমাবেশ
Next articleকক্সবাজারে রাতে গ্রামে গ্রামে জুয়ার জমজমাট আসর, বাড়ছে চুরি-ছিনতাই-ডাকাতি
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।