আহাম্মদ কবির: সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে কর্মরত সাংবাদিক দৈনিক সংবাদ এর উপজেলা প্রতিনিধি কামাল হোসেন কে গাছের সাথে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের প্রতিবাদে ও জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবিতে তাহিপুরে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ (০৩,ফেব্রুয়ারী)বুধবার তাহিরপুর উপজেলা প্রেসক্লাবের আয়োজনে উপজেলা সদরের পূর্ব বাজারে এ মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।
এতে উপজেলার কর্মরত প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সংবাদকর্মী ছাড়াও স্থানীয় রাজনৈতিক ও পেশাজীবি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ একাত্মতা পোষণ করেন।
অন্যদিকে ঘটনার পরদিন গতকাল মঙ্গলবার মধ্যরাতে এই ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে ৪জন কে আটক করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে তাহিরপুর থানা পুলিশ। এছাড়াও আর একজন কে আটক করার তথ্য পাওয়া গেছে।

তাহিরপুর উপজেলা প্রেসক্লাব সভাপতি রমেন্দ্র নারায়ণ বৈশাখ এর সভাপতিত্বে ও সাংবাদিক জাহাঙ্গীর আলম ভুঁইয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মানব বন্ধনে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি আলী মুর্তজা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামীলীগের কৃষি ও সমবায় সম্পাদক হাবিবুর রহমান খেলু,উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য সেলিম আখঞ্জী,বিশিষ্ট সমাজসেবক এমদাদুল হুদা, উপজেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক খসরু ওয়াহিদ চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মজিদ, আব্দুল কাদির, নুরুল ইসলাম বাঘা, উপজেলা মুক্তিযুদ্ধা সন্তান কমান্ড সভাপতি এমদাদ নুর, আওয়ামীলীগ নেতা জোসেফ আখঞ্জী,ছাত্রলীগ নেতা জাহিদ হাসান ।

দৈনিক সুনামকন্ঠ স্টাফ রিপোর্টার রাজন চন্দ, দৈনিক ভোরের পাতা প্রতিনিধি আবুল কাশেম, দৈনিক ডেল্টা টাইমস তাহিরপুর প্রতিনিধি রাহাদ হাসান মুন্না, আলোকিত সকাল তাহিরপুর প্রতিনিধি আহমেদ কবির,দৈনিক লাল সবুজের দেশ প্রতিনিধি আবু জাহান তালুকদার, দৈনিক বর্তমান খবর প্রতিনিধি প্রতিনিধি মুরাদ মিয়া, দৈনিক গণমুক্তির প্রতিনিধি টাইফুন মিয়া,সিলেট জার্নাল প্রতিনিধি খোরশেদ আলম, দৈনিক পর্যবেক্ষণ প্রতিনিধি তানভীর হাসান।

মানববন্ধনে বক্তারা সাংবাদিক কামাল হোসেনকে গাছের সাথে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্মমভাবে নির্যাতনের ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে এ ঘটনার সাথে জড়িত সকল অপরাধীকে দ্রুত গ্রেপ্তার করে কঠোরে শাস্তির দাবি জানান।

মানববন্ধনে উপস্থিত নেতৃবৃন্দরা বলেন, হাওর বেষ্টিত সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী যাদুকাটা নদীতে প্রতিনিয়ত স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী চক্র প্রশাসনের চোখ ফাকিঁ দিয়ে দিনে কিংবা রাতে সরকারের রাজস্ব ফাকিঁ দিয়ে নদীর পাড় কেটে অবৈধভাবে প্রতিদিন লাখ লাখ টাকার বালু ও পাথর উত্তোলন করে।

অবৈধভাবে বালু উত্তোলন অব্যাহত রাখতে মূল বাঁধার কারণ হিসেবে সংবাদকর্মীদের মুখ বন্ধ রাখতে পরিকল্পিত ভাবে স্থানীয় সাংবাদিক কামাল হোসেনকে গাছের সাথে বেধেঁ অমানষিক নির্যাতন করে।

উল্লেখ্য, গত ১লা ফেব্রুয়ারি সোমবার দুপুরে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের জাদুকাটা নদীর ঘাগটিয়া এলাকায় নদীর তীর কেটে বালু-পাথর উত্তোলনের ছবি তুলার চেষ্টা করলে সাংবাদিক কামাল হোসেন কে গাছের সাথে রশি দিয়ে বেঁধে নির্মমভাবে নির্যাতন করা হয়। খবর পেয়ে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে। আহত অবস্থায় প্রথমে তাকে তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সাংবাদিক কামাল হোসেন উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের কামড়াবন গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে।

ঘটনার পরপরই সাংবাদিককে গাছে বেঁধে মারপিটের ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হতে থাকে এবং নিন্দ ও প্রতিবাদের ঝড় উঠে ।