ঘুষের মামলায় এলজিইডির রংপুরের সাবেক নির্বাহী প্রকৌশলী আখতার হোসেন ও সহকারী প্রকৌশলী কাওছার আলম কে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।

জয়নাল আবেদীন: দুর্নীতি দমন কমিশনের দায়ের করা ঘুষের মামলায় এলজিইডির রংপুরের সাবেক নির্বাহী প্রকৌশলী আখতার হোসেন ও সহকারী প্রকৌশলী কাওছার আলম আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করলে আদালত তাদের জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছে ।রংপুরের জেলা ও দায়রা জজ মোঃ শাহেনুর বুধবার বিকেলে এ আদেশ দেন।মামলার বিবরণে জানা গেছে রংপুর এলজিইডির অধীনে প্রায় ৭ কোটি টাকা প্রাক্কলিত মূল্যের দুটি টেন্ডারে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান রবিউল আলম বুলবুল সর্ব নিম্ন দরপত্র দাতা বিবেচিত হবার পরও শতকরা দুই ভাগ হারে ১৫ লাখ টাকা ঘুষ দাবি করে না পাওয়ায় অন্য একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে কার্যাদেশ প্রদান করা হয়। এতে করে সরকারের ১ কোটি ২৬ লাখ টাকা ক্ষতি হয়েছে। এ ঘটনায় ঠিকাদার রবিউল ইসলাম আদালতে অভিযোগ দায়ের করলে বিজ্ঞ বিচারক মামলাটি তদন্ত করার জন্য দুদককে নির্দেশ দেন। দুদক তদন্ত শেষে রংপুর এলজিইডির সাবেক নির্বাহী প্রকৌশলী আকতার হোসেন সিনিয়র সহকারী প্রকৌশলী কাওছার আলম বর্তমানে ঢাকায় কর্মরত সহ ৪ আসামীর বিরুদ্ধে দণ্ডবিধি আইনের ১৬১/১৬৬/৪০৯ ধারা ও দুদক আইনের ৫(২) ধারায় আদালতে চার্জশীট দাখিল করে। নির্বাহী প্রকৌশলী আখতার হোসেন ও সহকারী প্রকৌশলী কাওছার আলম আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে বিজ্ঞ বিচারক শুনানি শেষে আসামীদের জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।সরকার পক্ষের আইনজীবীরা জানিয়েছেন আসামীরা ক্ষমতার অপব্যবহার করে ঘুষ দাবি করে না পেয়ে সর্বনিম্ন দরপত্র দাতা প্রতিষ্ঠানকে কার্যাদেশ না দিয়ে সরকারের ১ কোটি ২৬ লাখ টাকা ক্ষতি করেছেন।