ফিরোজ সুলতান: ঠাকুরগাঁওয়ে সোনালী ব্যাংক থেকে মরজিনা বেগম নামে এক বৃদ্ধার বয়স্ক ভাতার টাকা উধাও হওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

জেলার বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার সোনালী ব্যাংক হিসাব নম্বর থেকে এ ভাতার প্রায় ১৩ হাজার টাকা উধাও হয়। এ ঘটনায় বয়স্ক ভাতার টাকা চেয়ে ভাতাভোগী মরজিনা বেগম গত বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) উপজেলা সমাজসেবা অফিসার বরাবর লিখিতভাবে আবেদন করেছেন। মরজিনা বেগম বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার আমজানখোর ইউনিয়নের কাশিবাড়ী গ্রামের মৃত দাউদ আলীর স্ত্রী ও ৭৬৯৭৭নং হিসাব ও ৭/২২৬নং বয়স্ক ভাতাভোগী তিনি।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, বয়স্ক ভাতার টাকা উত্তোলন করতে এসে দেখা গেছে আগেই টাকা উত্তোলন করে নেওয়া হয়েছে। ঘটনাটি ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে অবগত করার পরেও গত চার দিন ধরে সোনালী ব্যাংকের বারান্দায় ঘুরছি টাকা পাওয়ার আশায়। কিন্তু ব্যাংক কর্তৃপক্ষ আজ কাল করে সময়ক্ষেপণ করলে
উপজেলা সমাজসেবা অফিসার বরাবরে লিখিত দরখাস্ত দিয়েছি।

উপজেলা সমাজসেবা অফিসার ফিরোজ সরকার জানান, মরজিনার একটি লিখিত দরখাস্ত পেয়েছি। সেটি সোনালী ব্যাংক ম্যানেজারের সঙ্গে কথা বলে ফরোয়ার্ড করেছি তাদের বরাবরে। ম্যানেজার বলেছে, বিষয়টি তারা দেখবেন এবং টাকা ফেরত দেবেন।

তবে ব্যাংকের হিসাব নম্বর থেকে অ্যাকাউন্টের মালিকের অনুপস্থিতিতে টাকা উত্তোলন নিয়ে বেশ আলোচনার জন্ম নিয়েছে এলাকায়। স্থানীয়রা বলছে, ব্যাংক হচ্ছে টাকা লেনদেনের নিরাপদ স্থান। সেখানে যদি এ ধরনের ঘটনা ঘটে। তাহলে মানুষ ব্যাংকের প্রতি আস্থা হারাবে।

এ বিষয়ে সোনালী ব্যাংক বালিয়াডাঙ্গী শাখার ব্যবস্থাপক মনিরুল ইসলাম জানান, অনেক সময় ভুল করে অন্য অ্যাকাউন্টে ডেবিট হয়ে যায়। আমরা বিষয়টি আন্তরিকতার সঙ্গে দেখছি। আমরা ওই মহিলার টাকা ফেরত দেবার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি।

Previous articleযে কোন মূল্যে পাবনার ইছামতি নদীর অবৈধ দখল মুক্ত করে নাব্যতা ফেরানো হবে: নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী
Next articleবিলুপ্তির পথে গ্রামবাংলার জনপ্রিয় গরুর গাড়ি
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।