তাবারক হোসেন আজাদ: তিন গ্রামের মানুষের চলাচলে কোটি টাকা ব্যায়ে ডাকাতিয়া নদীর উপর নির্মাণ করা হয়েছিলো লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে আখনবাজার থেকে কালু বেপারির হাট সড়কের এ-ব্রিজটি। কিন্তু ব্রীজের দুই পাশেই মাটি না থাকায় রাস্তা চলাচলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে গ্রামবাসীদের।-যে কোন মুহুর্তে ধ্বসে গিয়ে মূল ব্রিজ থেকে সংযোগ রাস্তার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ার আশংকায়।

বৃহস্পতিবার (১১ মার্চ) সরজমিনে দেখা যায়, বালু দশ্যুদের বালুবাহী ট্রলি স্থানীয়দের আপত্তিকে তুচ্ছ করে সড়কের ঢালুতে উঠিয়ে দিয়ে চলাচল করা ও মাটিও না দেয়ার কারণে এমন ক্ষতি হয়েছে বলে স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীদের অভিযোগ।

এলজিইডি উপ-সহকারি প্রকৌশলীর মতে, চরম ঝুকির মধ্যে পড়েছে এপ্রোচ সড়কটি। দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে ক্ষতির আশংকা রয়েছে। কারণ সমতল ভুমি থেকে ১৫ বা ২০ ফুট উচ্চতার এই এপ্রোস সড়ক ধ্বসে পড়লে স্থানীয় জনবসতি চাপা পড়ার ঘটনার সাথে প্রানহানীর আশংকাও রয়েছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, দক্ষিন চরবংশি ইউপিবাসির দাবিতে প্রায় ১০ বছর পূর্বে কোটি টাকা ব্যয়ে এলজিইডির তত্ত্বাবধানে ব্রীজটি জনগনের চলাচলের জন্য নির্মান করা হয়েছিলো। ব্রীজটিতে উঠতেই যতরকম অত্যাচার ও ক্ষতির কারণ একমাত্র বালুবাহী ট্রলি ও নদীর দুই পাশের ভাঙ্গন। ইতোপূর্বে স্থানীয়রা একাধিকবার আপত্তি- প্রতিবাদ জানালেও তোয়াক্কা করেনি বালুখোর চক্র।

এবিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান আবু সালেহ মিন্টু ফরাজি বলেন, ওইখানে ব্রীজ উঠতেই ঢালু ধ্বসে গেছে। এলজিইডির প্রকৌশলি কাগজপত্র সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়ে পাঠিয়েছেন বলে তারা জানিয়েছেন।

বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড রায়পুরের উপ-সহকারি প্রকৌশলী আলমগীর হোসেন বলেন, ব্রিজের রিভার্টমেন্ট জোন এলাকা থেকে কোন ভাবেই বালু বা মাটি কাটা যাবে না। এরা কে বা কারা এখানে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করে ব্রীজকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলছে তা খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এলজিইডির রায়পুর প্রকৌশলী হারুনুর রশিদ বলেন, এ ব্রীজটির এপ্রোসসহ রাস্তাটি-সলিং করার বাজেট সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়ে পাঠানো হয়ে। আপাতত মানুসের চলাচলের জন্য ইউপি চেয়ারম্যান ইউএনও’র কাছে আবেদন দিলে ব্যবস্থা করবো।।

Previous articleতাদের সময় কাটে অপেক্ষায়
Next articleপীরগাছার সড়কে বেপরোয়া কৃষিকাজের ট্রাক্টর, আতঙ্কে পথচারীরা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।