আবু বক্কর সিদ্দিক: গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের বৈদ্যনাথ গ্রামের বৃদ্ধা শরিতন বেওয়া’র (৯০) সঙ্গে প্রতারণামূলক ৯১ শতক জমি দলিল মূলে নিজ নামে লিখে নিয়েছেন মেয়ে আম্বিয়া বেগম। জানা যায়, উক্ত গ্রামের মৃত আজিম উদ্দিন সরদারের স্ত্রী শরিতন বেওয়ার নিজ নামীয় ৯১ শতক জমি তার মেয়ে ও একই গ্রামের আশেক আলীর স্ত্রী আম্বিয়া বেগম গত ২৮ অক্টোবর/২০ তারিখে বৃদ্ধা মাকে ডাক্তার দেখানোর কথা বলে বাড়ি থেকে নিয়ে এসে ৯৭৮৯ নম্বর হেবা ঘোষণা মূলে নিজ নামে দলিল সম্পাদন করে নেন মর্মে শরীতন বেওয়া বাদী হয়ে সুন্দরগঞ্জের বিজ্ঞ সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে ৪৪/২০২১ নম্বর মোকদ্দমা আণয়ন করেন। এ ব্যাপারে কথা হলে শরিতন বেওয়া জানান, তার স্বামী আজিম উদ্দিন সরদার বহু আগে মৃত্যু বরণ করেছেন। তাদের ৩ ছেলে ও ২ মেয়ের মধ্যে শামছুল হক ও সলেমান সরদার মৃত্যু বরণ করেছেন। অপর ছেলে ও ২ মেয়ে জীবিত আছেন। পূর্ব পরিকল্পিতভাবে মেয়ে আম্বিয়া তাকে (বৃদ্ধাকে) ডাক্তার দেখানোর কথা বলে নিয়ে এসে কৌশলে জমি দলিল করে নিয়েছে মেয়ে আম্বিয়া বেগম। এ নিয়ে কথা হলে শরিতন বেওয়ার ছেলেদের ওয়ারিশগণ জানান, আম্বিয়া বেগমকে বৃদ্ধা শরিতন বেওয়া কোন প্রকার জমি দলিল করে দেয়নি। স্থানীয়ভাবে একাধিকবার শালিসে আম্বিয়া বেগম ও তার স্বামী আশেক আলী দোষ স্বীকার পূর্বক উক্ত জমি ঐ বৃদ্ধার নামে পূণঃরায় দলিল করে দেয়ার জন্য ৪৫ হাজার টাকা গ্রহণ করে আবারও প্রতারণা করছে। এ ব্যাপারে আম্বিয়া বেগম’র সঙ্গে কথা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। তবে, তার স্বামী আশেক আলীর সঙ্গে বিভিন্নভাবে কয়েক দফা যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তিনি এড়িয়ে যান। বিষয়টি নিশ্চিত করে ইউপি সদস্য মোফাজ্জল হোসেন জানান, এ ঘটনায় তার বাড়িতে ৩ বার শালিস বৈঠকে মিমাংসা হয়েছে। প্রতারণা মূলক বৃদ্ধা মায়ের কাছ থেকে দলিল করে নেয়া ৯১ শতক জমি ফেরৎ দিবে মেয়ে আম্বিয়া বেগম মর্মে দলিল সম্পাদনের জন্য শরিতন বেওয়ার ১ ছেলে ও অপর মৃত ২ ছেলের ওয়ারিশ গণের কাছ থেকে ৪৫ হাজার টাকা নিয়ে দেয়া হয়েছে। কিন্তু দলিল সম্পাদন করে দেয়নি।

Previous articleঠাকুরগাঁওয়ে অস্ত্র সহ ২ জেএমবি সদস্য গ্রেফতার
Next articleপীরগাছায় মাষাণকুড়া নদী পুনঃখননে ব্যাপক অনিয়ম
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।