তাবারক হোসেন আজাদ: লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে পুকুরের মাটি কাটা নিয়ে দুই পক্ষের-সংঘর্ষ ও বসতঘর ভাংচুর চালানো হয়েছে। এসময় উভয় পক্ষের নারীসহ অন্তত ১৭ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে গুরুত্বর জখম ৬ জনকে রায়পুর ও লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। উভয় পক্ষের অভিভাবকরা রায়পুর থানায় মামলার প্রস্তুতি নিয়েছেন বলে জানান।

সোমবার সকালে (২২ মার্চ) উত্তর চরবংশী ইউপির ৭নং ওয়ার্ডে কুচিয়ামারা গ্রামে মাঝি ও বেপারি বাড়ির লোকজনের মধ্যে এঘটনা ঘটেছে। এঘটনায় ওই এলাকায় দুই পক্ষের লোকদের মাঝে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

উভয় পক্ষের আহতরা হলেন, আশরাফ বেপারি, মোঃ মান্নান, ছালেহ আহম্মদ, মাইনউদ্দিন, ময়না বেগম, রহিমা বেগম, সত্তর মাঝি, আজিজুর নাহার, আরিফ মাঝি, ইছমাইল হোসেন, মোঃ সাইফুল, মোঃ রিপন ও সাহেনুর বেগমসহ ১৭ জন।

গ্রামবাসী ও কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, সোমবার সকালে চরবংশী কুচিয়ামারা গ্রামে বেপারি বাড়ির আশরাফ বেপারি নিজ পুকুরে মাটি কাটার কাজ করতে যান। এ খবর পেয়ে একই এলাকার মাঝি বাড়ির সত্তর মাঝি পুকুরের মালিকানা দাবী করে আশরাফ বেপারিকে মাটি কাটায় বাধা দেন। এতে উত্তেজিত হয়ে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও এক পর্যায়ে তাদের পরিবারের লোকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। এতে দু’পক্ষের অন্তত ১৭ জন গুরুতর আহত হয়েছেন। এসময় আশরাফ বেপারির বসতঘরে ভাংচুর চালান প্রতিপক্ষ সত্তর মাঝির লোকজন।

এঘটনায় সত্তর মাঝি ও আশরাফ বেপারি একে অপরের বিরুদ্ধে পরস্পরবিরোধী বক্তব্য রাখেন।

এঘটনায় উত্তর চরবংশী ইউপি চেয়ারম্যান আবুল হোসেন হাওলাদার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ঘটনা শুনেই ঘটনাস্থলে যাই। পরে গুরুত্বর আহতদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। উভয় পক্ষকে সমাধানের চেষ্টা করা হচ্ছে ।

রায়পুর থানার ওসি আবদুল জলিল জানান, ঘটনা শুনার সাথে সাথে পুলিশ পাঠিয়ে উভয় পক্ষকে শান্ত রাখা হয়েছে। মামলা হলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Previous articleতাহিরপুরে ভূয়া দলিল দিয়ে সংখ্যালঘু পরিবারের ভূমি দখল!
Next articleশাল্লায় হিন্দু পল্লীতে হামলার প্রতিবাদে ইবিতে মানববন্ধন
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।