সাহারুল হক সাচ্চু: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া পৌরসভার নিজস্ব ডাম্পিং পয়েন্ট নেই। পৌরসভা প্রতিষ্ঠার প্রায় ২৭ বছরেও ডাম্পিং পয়েন্ট হয়নি। পৌর এলাকার রাস্তার পাশে বিভিন্ন জায়গায় বর্জ্য আবর্জনা ফেলা হচ্ছে।

এতে পরিবেশ দূষণসহ পৌরবাসীরা দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। এভাবে বর্জ্য আবর্জনা ফেলা নিয়ে শহরের বসতি নাগরিকদের অভিযোগ রয়েছে। পৌর মেয়রের বক্তব্যে ডাম্পিং পয়েন্ট কম সময়ের মধ্যে হবে। উল্লাপাড়া পৌরসভা বিগত ১৯৯৪ সালে গঠন হয়েছে। এটি এখন প্রথম শ্রেনীর একটি পৌরসভা । পৌর এলাকায় দিন দিন বসতি সংখ্যা বাড়ছে । সেই সাথে বাড়ছে নানা ধরণের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা । তাই বর্জ্য আবর্জনার পরিমাণও বাড়ছে। পৌরসভার নিজস্ব নির্দিষ্ট ডাম্পিং পয়েন্ট না থাকায় শহরের বেশ ক্#৩৯;জায়গায় বর্জ্য আবর্জনা ফেলা হচ্ছে । পৌর শহরের মাঝ দিয়ে সড়ক ও জনপথ বিভাগের একটি পাকা সড়ক বয়ে গেছে। সড়কটির পাশে বহু সংখ্যক পরিবারের বসবাস আছে। এছাড়া গড়ে উঠেছে নানা ধরণের বহু ব্যবসা প্রতিষ্ঠান । ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আরো হচ্ছে । পৌর এলাকার ওভার ব্রীজ এলাকায় অনেকদিন থেকেই বর্জ্য আবর্জনা ফেলা হচ্ছে । এটি শহরের মূল পয়েন্ট এলাকা বলা চলে। এছাড়াও আরো ক্#৩৯;জায়গায় ফেলা হয় বর্জ্য আবর্জনা । বর্জ্যের কারণে সেসব এলাকার পরিবেশ নোংরা হয়ে থাকছে । আর বাতাসে দুর্গন্ধ ছড়ায়। এতে সড়ক পথ হয়ে চলাচলকারীরাসহ আশেপাশের বসতিরা একধরণের অতিষ্ঠ হয়ে পড়ছেন । পৌর এলাকার বেশ ক্#৩৯;জন বসতি বলেন এভাবে বর্জ্য আবর্জনা ফেলায় পরিবেশ দূষণসহ দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। এসব ফেলার জন্য বসতি এলাকার বাইরে নির্ধারিত জায়গা থাকা দরকার বলে মত মিলেছে। প্রথম শ্রেনীর উল্লাপাড়া পৌরসভার দ্বিতীয়বার নির্বাচিত মেয়র হলেন এস এম নজরুল ইসলাম । প্রতিবেদককে বলেন বিগত সময়ে পৌরসভার চেয়ারম্যান কিংবা মেয়র পদে যারা দায়িত্বে ছিলেন তারা ডাম্পিং পয়েন্ট করার বিষয়ে কোনো উদ্যোগ পদক্ষেপ নেননি। পৌরসভা এলাকা ডাম্পিং পয়েন্ট থাকা একান্ত দরকার। সেখানে না থাকায় নিরুপায় হয়ে পৌর এলাকার বিভিন্ন জায়গায় বর্জ্য আবর্জনা ফেলতে হচ্ছে । তিনি প্রথমবার নির্বাচিত হয়ে আসার পর থেকেই ডাম্পিং পয়েন্টের জন্য জোর চেষ্টা চালিয়ে আসছেন বলে জানান। তিনি আরো বলেন এরই মধ্যে পাবনা ও বগুড়া প্রকল্পে ডাম্পিং পয়েন্টের জন্য একটি প্রকল্প জমা দেওয়া হয়েছে। পৌরসভার ঘাটিনা এলাকায় এর জন্য জায়গা নির্ধারণ করা হয়েছে । করোনা পরিস্থিতিতে এর পেছনে অর্থ বরাদ্দ ও দরপত্র আহবানের কাজ পিছিয়েছে । তবে কম সময়ের মধ্যে ডাম্পিং পয়েন্ট করা বাস্তবায়ন হবে বলে জানানো হয় ।

Previous articleসোনামসজিদে চোরাই মোবাইল ও কালটার বিষসহ আটক ৬
Next articleবঙ্গমাতার জন্মদিন উপলক্ষ্যে ঈশ্বরদীতে সেলাই মেশিন বিতরণ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।