জয়নাল আবেদীন: রংপুর রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে অনেক আলোচনা সমালোচনা থাকলেও বিশ্বসেরা গবেষকদের তালিকায় স্থান পেয়েছেন ৭ শিক্ষক। যদিও এ তালিকায় বাংলাদেশের আরও ১ হাজার ৭শ৮১ জন গবেষক রয়েছেন। আন্তর্জাতিক খ্যাতনামা সংস্থা এডি সায়েন্টিফিক ইনডেক্স থেকে এ তালিকা প্রকাশ করা হয়।

প্রকাশিত তালিকায় স্থান পাওয়া বেরোবির সাত গবেষকদের মধ্যে ১ম স্থানে রয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. আবু রেজা মোহাম্মদ তৌফিকুল ইসলাম রিপন। বাংলাদেশে তার অবস্থান ১৩৫, এশিয়ায় ৩৪ হাজার ৯শ৮৬ এবং বিশ্বে ২ লাখ ১০ হাজার ৫শ৬০ জনে। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. কামরুজ্জামান। বাংলাদেশে তার অবস্থান ৭শ৩২, এশিয়ায় ৮৮ হাজার ৫শ৫৩ এবং বিশ্বে ৪ লাখ ৩০ হাজার ৯শ৭৫। তৃতীয় স্থানে পরিসংখ্যান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. শাহজামান। বাংলাদেশে তার অবস্থান ১হাজার ৩শ৬৪, এশিয়ায় ১ লাখ ১৬ হাজার ১০ এবং বিশ্বে ৫ লাখ ৪শ৩৬। চতুর্থ স্থানে রয়েছেন ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যা ন্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগের প্রধান ফেরদৌস রহমান। বাংলাদেশে তার অবস্থান ১হাজার৩শ৭২, এশিয়ায় ১ লাখ ১৬ হজার ১শ৬৯ এবং বিশ্বে ৫ লাখ ৬শ৭৮। ৫ম স্থানে ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. নুর আলম সিদ্দিক। বাংলাদেশে তার অবস্থান ১হাজার ৪শ৩০, এশিয়ায় ১ লাখ ১৮ হাজার ৪শ৪৬ এবং বিশ্বে ৫ লাখ ৬৯ হাজার ৮৮। ষষ্ঠ অবস্থানে অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আপেল মাহমুদ। দেশে তার অবস্থান ১হাজার ৬শ০৩।সপ্তম স্থানে রয়েছেন পরিসংখ্যান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. সিদ্দিকুর রহমান। বাংলাদেশে তার অবস্থান ১হাজার৬শ৫৬।গত রোববার এডি সায়েন্টিফিক ইনডেক্সের ওয়েবসাইট থেকে এ তথ্য জানা যায়। ১২টি ক্যাটাগরিতে বিশ্বের ২শ০৬টি দেশের গবেষকদের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এতে ৭ লাখ ৮ হাজার ৫শ৬১ জন গবেষক স্থান পেয়েছেন। বাংলাদেশের ১ হাজার ৭শ৮৮ জন গবেষকের মধ্যে বেরোবির ওই সাত শিক্ষক স্থান পেয়েছেন।

Previous articleচান্দিনায় আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস এবং সিপিপির ৫০ বছর পুর্তি বিষয়ক আলোচনা সভা
Next articleপীরগাছায় আন্তর্জাতিক দূর্যোগ প্রশমন দিবস পালিত
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।