সুমন গাজী: গাজীপুর সদর উপজেলার ভবানীপুর এলাকায় হামজা অ্যাপারেলস লিমিটেড ও প্রীতি গ্রুপ নামের দুটি শিল্প প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সরকারি রাস্তার সম্পত্তি নিয়ে বিরোধকে ঘিরে দিনদিন উত্তেজনা বিরাজ করছে। দু’পক্ষই পরস্পরের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তুলে ধরছেন তারা। এতে কোটি কোটি টাকার ক্ষতির মুখে পড়ছেন শিল্প মালিকরা।

প্রীতি গ্রুপের জেনারেল ম্যানেজার নাহিদ শিহাব বলেন ভবানীপুর এলাকায় হামজা কেমিক্যাল এর পাশে সরকারের রেকর্ডীয় রাস্তা দেখে প্রীতিগ্রুপ কারখানা নির্মাণ করার জন্য ২০ বিঘা জমি ক্রয় করে কয়েক কোটি টাকা বিনিয়োগ ও করেন প্রীতি গ্রুপ। কিন্তু ওই রাস্তাটি হামজা গ্রুপ দখলে নেওয়ার কারণে তাদের প্রকল্পে আসা যাওয়ার পথ একেবারে বন্ধ হয়ে গেছে।

এজন্য তারা আইন-আদালত ও পুলিশের আশ্রয় নিতে হয়েছে তাদের। কিন্তু হামজা কেমিক্যালের রাস্তা বন্ধ করে দিয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে এতে করে প্রীতি গ্রুপের নির্মাণকাজ বন্ধ রয়েছে। এদিকে ভবানীপুর এলাকার হামজা অ্যাপারেলস লিমিটেড এর প্রজেক্ট ইঞ্জিনিয়ার এসএম ফরিদ আহমেদ অভিযোগে করে বলেন হাজার হাজার শ্রমিকের কর্মসংস্থানের সুযোগ করা হয়েছে। এখন তাদের কারখানা হুমকির মুখে তাদের নির্মাণ করা নয়তলা ভবনের সামনের একটি পরিত্যাক্ত রাস্তার ৬৭ শতাংশ জমি সরকারের কাছ থেকে ক্রয় করে অবকাঠামো নির্মাণ করতে থাকলে তাতে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে স্থানীয় প্রীতি গ্রুপ।

প্রীতি গ্রুপের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির কারনে চরম ক্ষতির মুখে পড়ছে প্রায় ২০ হাজার লোকের কর্মসংস্থান। এছাড়া হামজা গ্রুপের এমডি’র বিরুদ্ধে অন্ততঃ সাতটি মিথ্যা মামলা দিয়েও হয় রাণী করছে বলে জানান হামজা অ্যাপারেলস লিমিটেড এর প্রজেক্ট ইঞ্জিনিয়ার এসএম ফরিদ আহমেদ এ ব্যাপারে জয়দেবপুর থানার ওসি মাহাতাব উদ্দিন বলেন যে কোন ব্যক্তি অভিযোগ নিয়ে এলে তাদেরকে আমরা আইনগত সহায়তা করে থাকি। আইন-শৃংখলা পরিস্থিতির যেন কোন অবনতি না হয় সে জন্য উভয় পক্ষকে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় থাকতে বলা হয়েছে।

Previous articleফেরিঘাট বন্ধ: পাটুরিয়ায় পারের অপেক্ষায় ৭ শতাধিক গাড়ি
Next articleইমুতে যুবতীর আপত্তিকর ভিডিও ধারণ করে শারীরিক সম্পর্কের প্রস্তাব, যুবক গ্রেফতার
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।