জি.এম.মিন্টু: কেশবপুরে এক বৃদ্ধ মায়ের চিকিৎসার কথা বলে জমি লিখে ও নগদ টাকা আতœসাত করেছে আপন ছেলে রবিউল ইসলাম ও তার ছেলে মেহেদি। আতœসাতকৃত টাকা ফেরত চাইলে টেনে হিঁসড়ে বৃদ্ধ মায়ের হাত ও পা ভেঙ্গে দিয়েছে কুলঙ্গার ছেলে।

ঘটনা জানতে পেরে তাঁর পোতা ছেলে রাশেদুল ইসলাম বাবু দাদীকে উদ্ধার করে কেশবপুর মার্তৃমঙ্গল ক্লিনিকে ভর্তি করে। এ ঘটনায় বৃদ্ধ মা ছেলের বিরুদ্ধে ন্যায় বিচার চেয়ে কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে গত বুধবারে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। লিখিত অভিযোগে জানাগেছে, উপজেলার দোরমুটিয়া গ্রামের মৃত কওছার সরদারের স্ত্রী মোছাম্মদ ছায়রা বেগম(৭০)। দাম্পত্য জীবনে ছায়রা বেগমের ২ ছেলে ও ২ মেয়ে রয়েছে। স্বামীর মৃত্যু পর ছায়রা বেগম শারিরিক ভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েন। কিন্তু চিকিৎসা করার জন্য আপন কোন ছেলে মেয়ে এগিয়ে আসেনি। ফলে চিকিৎসার জন্য ছায়রা বেগম বাপের বাড়ির জমি ও ছাগল-গরু বিক্রি করে ৬ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা যোগাড় করেন। মা ছোট পুত্র মোঃ রবিউল ইমলামের কাছে গচ্ছিত টাকা দেন চিকিৎসা করানোর জন্য। কিন্তু কুলঙ্গার পুত্র রবিউল বৃদ্ধ মায়ের চিকিৎসা না করিয়ে পুরা টাকা আতœসাত করে। এমনকি চিকিৎসার কথা বলে কৌশলে স্বামীর ভিটে-মাটি ও মায়ের ক্রয়কৃত সম্পত্তি টুকুও কৌশলে মায়ের কাছ থেকে লিখে নেয়। পরে বৃদ্ধ মা ছায়রা জানতে পেরে পুত্রের কাছে চিকিৎসার টাকা ফেরত চাই।

কুলঙ্গার পুত্র রবিউল ও তাঁর ছেলে মেহেদি টাকা ফেরত না দিয়ে টেনে-হিঁসড়ে ঘর থেকে বাইরের উঠানে ফেলে দেয়। এতে ছায়রা বেগমের ডান পা ও ডান হাত ভেঙ্গে যায়। অচল অবস্থায় গ্রামবাসি ও পোতা ছেলে তাঁকে উদ্ধার করে কেশবপুর মার্তৃমঙ্গল ক্লিনিকে ভর্তি করে। বর্তমানে চিকিৎসার অভাবে ছায়রা বেগম তাঁর দিনমজুরী পোতা ছেলে ভালুকঘর গ্রামে রাশিদুলের বাড়ীতে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। এ বিষয়ে কুলঙ্গার পুত্র রবিউলের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করেও পাওয়া যায়নি। তবে তাঁর স্ত্রী পারভিনা বেগম বলেন, শ^াশুড়ির জমানো যে টাকা পয়সা ছিলো আমরা তাঁর পিছনে ব্যয় করেছি। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এম এম আরাফাত হোসেন বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্তপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Previous articleযুদ্ধ শুরু! ইউক্রেনের সৈন্য নিহত
Next articleপীরগাছায় পোকা দমনে সাড়া ফেলেছে পার্চিং পদ্ধতি
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।