শেখ রাজেন: চারদিকে নোংরা ও অপরিচ্ছন্ন পরিবেশ। সঙ্গে আসন স্বল্পতা। এরই মধ্যে তাই মেঝেতেই চিকিৎসা নিতে হচ্ছে রোগীদের। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে এভাবেই চলছে ডায়রিয়া ওয়ার্ড।

জেলায় হঠাৎ করে ডায়রিয়ার প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় আসন বাদে সব ধরনের সেবাই নিশ্চিত করা হচ্ছে বলে দাবি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের। আর অতিরিক্ত গরমে এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

জানা গেছে, গত এক সপ্তাহে প্রায় ছয় শতাধিক মানুষ ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন এর মধ্যে চারশত মানুষ ডায়রিয়া রোগের চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন । বর্তমানে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের ডায়রিয়া ওয়ার্ডে ৭৯ জন ভর্তি থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। আর চিকিৎসা নিয়ে বাসায় গিয়েছেন ৩৫ জন অথচ আসন আছে মাত্র ৩২টি। এরই মধ্যে প্রতিদিনই বাড়ছে নতুন নতুন রোগী।

রোববার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের ডায়রিয়া ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায়, শয্যা খালি না থাকায় রোগীদের অনেককেই মেঝেতে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। রোগীর সঙ্গে স্বজনেরাও ডায়রিয়া ওয়ার্ডে অবস্থান করছেন।

আক্রান্তদের মধ্যে নারী, শিশু ও বৃদ্ধরাই বেশি।

চিকিৎসক ও নার্সদের বলছেন, গত বছরও ডায়রিয়ায় আক্রান্ত এত রোগী হাসপাতালের ভর্তি হননি। চলতি বছর ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগীদের সংখ্যা অনেক বেড়েছে। মাত্রাতিরিক্ত গরমের জন্যই ডায়রিয়ার প্রকোপ বেড়েছে। যাঁদের অবস্থা গুরুতর হচ্ছে, তাঁদের ঢাকায় অবস্থিত আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণাকেন্দ্রে (আইসিসিডিআরবি) পাঠানো হচ্ছে।

রোগীর স্বজরা জানিয়েছেন, ওষুধসহ প্রয়োজনীয় স্যালাইন পেলেও আসন না পাওয়ায় অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে মেঝেতেই চিকিৎসা নিতে হচ্ছে। এতে তাঁদের দুর্ভোগ বাড়ছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের ডায়রিয়া ওয়ার্ডে দায়িত্বরত সিনিয়র নার্স সৌজতি আক্তার বলেন, হঠাৎ করেই ডায়রিয়ার প্রকোপ বেড়েছে। তাই হাসপাতালে রোগীর সংখ্যাও অন্যান্য বছরের তুলনায় অনেক বেশি। রোগীদের খাবার স্যালাইন, আইভি স্যালাইনসহ বিভিন্ন ধরনের ওষুধ ও ইনজেকশন দেওয়া হচ্ছে। অনেকেই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরছেন। শয্যা খালি না থাকায় অনেক রোগীকে মেঝেতে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে।

জেলার স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, ডায়রিয়া রোগীদের সেবায় হাসপাতালের আসন সংখ্যা, স্যালাইন ওষুধসহ সব কিছুর বিষয়ে তৎপরতা বাড়ানো হয়েছে।

চিকিৎসকরা বলছেন, গরম বাড়ার পাশাপাশি খাবারসহ বিশুদ্ধ পানি গ্রহণে অসচেতনতার কারণেই ডায়রিয়ার প্রকোপ বাড়ছে। সবাইকে খাদ্য ও পানীয় গ্রহণে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক মো. ওয়াহিদুজ্জামান।

Previous articleশাহজাদপুরে প্রফেসর মেরিনা জাহান কবিতা এমপিকে সংবর্ধনা
Next articleচিলমারীতে ঘুর্ণিঝড়ে বসতবাড়ী লন্ড-ভন্ড
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।