আবুল কালাম আজাদ: টাঙ্গাইল সদর উপজেলার পৌলী নদীতে অবৈধ বালু উত্তোলনের দায়ে দুই বালু ব্যবসায়িকে ১ লক্ষ টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমান আদালত। অভিযানে অবৈধ বাংলা ড্রেজার ধ্বংস ও প্রায় ১ হাজার ফুট বালু পরিবাহী পাইপ গুড়িয়ে দেওয়া হয়।

শনিবার (২ জুলাই) অবৈধ ড্রেজার পরিচালনার দায়ে পৌলী গ্রামের একাব্বর আলীর ছেলে টুটুল (২৫) ও আমির আলী ছেলে মিজান (২০) কে এক লক্ষ টাকা জরিমানা করেছেন সদর উপজেলার সহকারি কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অতনু বড়য়া। জানা যায়, সদর উপজেলার বড়বাশালিয়া গ্রামের মৃত শামসুল আলমের ছেলে আশরাফুল আলম সুমন, কালিহাতী উপজেলার রাজবাড়ী গ্রামের মৃত জলিল সরকারের ছেলে উজ্জ্বল সরকার, পৌলী গ্রামের একাব্বর আলীর ছেলে টুটুল, আমির আলী ছেলে মিজান ও শফিকসহ ৮-১০ জন বালু ব্যবসায়ী ওই এলাকায় দীর্ঘদিন যাবত পৌলী নদীতে অবৈধ ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করে আসছিল। এতে নদী তীরবর্তী বাসিন্দাদের বসতবাড়ী ও ফসলী জমি বিভিন্ন সময় নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায়। এ কারণে এলাকাবাসীর পক্ষে বড়বাশালিয়া গ্রামের নজরুল ইসলাম ড্রেজার বসিয়ে অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধের দাবিতে সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত আবেদন করায় উপজেলা প্রশাসন ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালনা করেন।

টাঙ্গাইল সদর উপজেলার সহকারি কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অতনু বড়–য়া জানান, পৌলী নদীতে তারা দীর্ঘদিন যাবত অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে আসছিল। বার বার তাদেরকে সতর্ক করা হলেও বালু উত্তোন বন্ধ না করায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে দুই বালু ব্যবসায়ীকে এক লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়। বালু উত্তোলন বন্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি জানান।

Previous articleরংপুর অঞ্চলের করোনা পরীক্ষার একমাত্র পিসিআর মেশিনটি প্রায় ৪ মাস ধরে বিকল
Next articleতাহিরপুরে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করল বিজিবি
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।