আবুল কালাম আজাদ: কুড়িগ্রামের উলিপুরে উপজেলার গুনাইগাছের মোড় থেকে পৌর পিলার এবং আম-জামের তল থেকে থেতরাই বাজার পর্যন্ত রাস্তা সংস্কার না করায় প্রতিনিয়ত বাড়ছে দুর্ঘটনা। উক্ত রাস্তায় যান বাহন চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। সাধারণ মানুষ এ সকল দুর্ঘটনা থেকে বাঁচতে রাস্তা সংস্কার ও দুর্ঘটনা প্রতিরোধের প্রতিকার চায়।

উলিপুর উপজেলার থেতরাই রোড দিয়ে পৌরসভার জনগণ সহ আরও দু’টি ইউনিয়ন অর্থাৎ গুনাইগাছ ও থেতরাই ইউনিয়নের অসংখ্য লোক পায়ে হেঁটে, সাইকেলে, মোটর সাইকেলে, অটোরিক্সায়, লেগুনা সহ বিভিন্ন ধরনের যানে চলাচল করে। উক্ত ইউনিয়ন দুটি অত্যন্ত ঘনবসতিপূর্ণ। উক্ত রোড দিয়ে দিনে ও রাতে প্রায় ৩০০ থেকে ৪০০ অটো রিক্সা, মিশুক, রিক্সা, ভটভটি, মালবাহী ট্রাক সহ বিভিন্ন ধরনের যান চলাচল করে। ফলে রাস্তার দুই ধার ব্যাপকভাবে পাইলিং হয়েছে। আবার কোথাও কোথাও রাস্তা ভেঙে চৌচির হয়ে গেছে। রাস্তার যে বেহাল অবস্থা যার কারণে প্রতিনিয়ত বাড়ছে দুর্ঘটনা। দুর্ঘটনার কবলে পড়ে কেউবা হাত পা হারিয়ে ফেলছে, কেউ পঙ্গু হচ্ছে, কেউ গুরুতর অসুস্থ হচ্ছে, কেউবা মৃত্যুর লাশ হয়ে বাড়ি ফিরছে। এ যেন দেখার কেউ নেই। এসকল দুর্ঘটনা থেকে বাঁচতে এলাকাবাসী প্রতিকার চায়। এলাকাবাসীর দাবী রাস্তা সংস্কার করে দিতে হবে এবং প্রশিক্ষণ বিহীন অটোরিক্সা চলাচল বন্ধ করে হবে।

উক্ত রাস্তার বেহাল অবস্থার জায়গা গুলো হলো উলিপুর থেকে থেতরাই আসতে মাঝিপাড়া, বিবিসির মোড়, সরকার বাড়ির সামন, ভুতের বাজার, দুই ইট ভাটার মাঝে, হারুনেফড়া ছরোয়ালের বাড়ির সামনে, হারুনেফড়া সরকারি প্রার্থমিক বিদ্যালয়ের সামনে, ফাঁসিদাহ বাজার, শশ্মানের সামনে, নয়ঘরিয়ায়, থেতরাই বালিকা বিদ্যালয়ের সামনে, মিঠাআমের তল, পাতারি মসজিদের সামনে সহ আরও অনেক জায়গা। এ সকল জায়গায় প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা ঘটেই যাচ্ছে। কখনো অটোরিকশা উলটে পড়ে যাত্রীরা আহত হচ্ছে, কখনো অটোরিকশার সাথে মটর সাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষ লেগে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।
উক্ত রাস্তাদিয়ে চলাচল সহজ করে দিতে উক্ত ইউনিয়নের সকল সাধারণ জনগণ আমরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

উক্ত রাস্তার পাশে বসবাস করা সাধারণ জনগণের মধ্যে হারুনেফড়া সরকার পাড়ার আশরাফ আলী, আজাদ মিয়া, নুরুজ্জামান, মিঠাআমের তলের রফিকুল ইসলাম, সাজু, ফাঁসিদাহ বাজারের ব্যাবসায়ী রেজা মিয়া, কৃষ্ণ, সোহেল মিয়া, লিটন, মজিবর রহমান বিবিসির মোড়ের জাহাঙ্গীর, হাসান, ফরহাদ সহ আরও অনেকে বলেন এই রাস্তার যে বেহাল অবস্থা প্রায় প্রতিদিনই একটা না একটা দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। তারা আরও বলেন অনেক দিন আগে এই রাস্তার কাজ সংস্কার করা হয়েছে তার পর এখন পর্যন্ত এই রাস্তা সংস্কার করতে দেখিনি। বিষেশ করে এই রাস্তায় অটোরিকশা চলাচল বেশি হয়েছে। তাদের প্রশিক্ষণ না থাকা এবং ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকায় বেপরোয়া ভাবে অটো চালায়। তাতে করে মোটরসাইকেল সহ অন্যান্য যানের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ বেঁধে যায়। অনেক ক্ষয়ক্ষতি হয়। আমরা এলাকাবাসী এর প্রতিকার চাই।

উপজেলা উপ-সহকারী প্রকৌশলী নজরুল ইসলাম বলেন, আগষ্ট মাসের ২৫ তারিখে টেন্ডার উপেন করা হবে। অক্টবর অথবা নভেম্বরের মধ্যে করিম মিয়ার মোড় পৌর পিলার আম-জামের তল থেকে থেতরাই বাজার পর্যন্ত রাস্তার পাইলিং সহ সংস্কার করা হবে। তিনি বলেন তখন রাস্তার কোন সমস্যা থাকবেনা।”

Previous articleচান্দিনায় শিক্ষার্থীদের মাঝে সাইকেল বিতরণ
Next articleচাঁপাইনবাবগঞ্জে জাল রুপি ও জাল টাকাসহ আটক ১
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।