বাংলাদেশ প্রতিবেদক: কলাপাড়ার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থান ও স্থাপনায় বসানো হলো অত্যাধুনিক সিসি-টিভি ক্যামেরা। এরপর ধারাবাহিকভাবে আরো গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় দেয়া হবে সিসি ক্যামেরা।

বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজি এবং পটুয়াখালী জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশনায় পটুয়াখালী-০৪, আসনের সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ মো: মহিবুর রহমান এই সিসি ক্যামেরা স্থাপনে করেছে আর্থিক সহযোগিতা। কলাপাড়া থানায় বসে সর্বক্ষণিক মনিটরিং করা হচ্ছে সিসি ক্যামেরার আওতায় এসব এলাকা। সিসি ক্যামেরা বসানোর পর ওই সব স্থানে কমেছে অপ্রিতিকর ঘটনা। এরই মধ্যে সিসি ক্যামেরা দেখে কলাপাড়ার এক শিক্ষকের হারানো কয়েক লক্ষ টাকা উদ্ধার করে দিয়েছে কলাপাড়া থানা পুলিশ।

কলাপাড়ার সিক্সলেন, ফোরলেন, চাকামইয়া ইউনিয়নের প্রবেশপথ, বাসস্ট্যান্ড, শেখ কামাল সেতু সংলগ্ন প্রবেশ পথ, হাসপাতাল গেট, ফেরিঘাট চৌরাস্তা, বালিয়াতলী ইউনিয়নের জিরো পয়েন্ট, মিঠাগঞ্জ ইউনিয়নের প্রবেশপথ সহ বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় বসানো হয়েছে সিসি ক্যামেরা। ধীরে ধীরে আরো বিস্তৃত করা হবে সিসি ক্যামেরার আওতা। এছাড়াও কলাপাড়া পৌরভবন, পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড বাজারের গুরুত্বপূর্ণ জায়গা, ব্রিজের টোল পয়েন্ট সহ শহরের অধিকাংশ ব্যবসায়ীরা তাদের ব্যক্তিগত ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে রেখেছে সিসি ক্যামেরার আওতায়। কলাপাড়া নতুন বাজারের ব্যবসায়ী মো: দেলোযার হোসেন জানান, সিসি ক্যামেরা স্থাপন অত্যন্ত ভালো পদক্ষেপ, এর দ্বারা অনেক ব্যবসায়ী উপকৃত হবে।

ব্যবসায়ী তাপস সাহা জানান, বিভিন্ন পয়েন্টে পয়েন্টে সিসি ক্যামেরা বসানো একটি যুগন্তকারী পদক্ষেপ। এর ফলে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে চুরি হলেও চোর সনাক্ত করা সহজ হবে ও চুরি অনেক কমে যাবে। কাপড় ব্যবসায়ী মো: সোহেল মিয়া জানান, আমার দোকান সিসি ক্যামেরার আওতায়। সিসি ক্যামেরা দেখলে চুরি কম হয়। চুরি হলেও সিসি ক্যামেরা দেখে তা সনাক্ত করা সহজ হয়। কলাপাড়া বাসস্ট্যান্ডের মো: বাচ্চু ও মো: সেলিম জানান, এলাকায় সিসি ক্যামেরা বসানোর ফলে বাসস্ট্যান্ড এরিয়াটি নিরাপত্তার আওতায় এসেছে। এছাড়াও চাকামইয়া ইউনিয়নের প্রবেশদ্বারে সিসি ক্যামেরা থাকায় প্রবেশদ্বারে মানুষের নিরাপত্তা বেড়েছে।

কলাপাড়া পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র মো: হুমায়ুন কবির জানান, ইতিমধ্যেই বাজারের গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় পৌরসভার থেকেবসানো হয়েছে সিসি ক্যামেরা। পর্যায়ক্রমে বাজারের নিরাপত্তার জন্য আরো বাড়ানো হবে সিসি ক্যামেরা।

কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: জসিম জানান, সিসি ক্যামেরা বসানোর ফলে পুলিশ প্রশাসনের কাজেও অনেক গতি ফিরেছে, ১ সপ্তাহ আগে কলাপাড়ার শিক্ষক মো: সোহরাব উদ্দিন বিশ্বাস আমতলী যাওয়ার পথে ভুল করে অটো গাড়িতে টাকা ফেলে গেলে কলাপাড়া থানা পুলিশকে অবহিত করলে সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে কলাপাড়া থানা পুলিশ টাকা উদ্ধার করে ওই শিক্ষকের কাছে ফিরিয়ে দেই।

Previous articleকলাপাড়ায় খাদ্য অধিদপ্তরের ধান-চাল সংগ্রহে দুর্নীতির ব্যাপক অভিযোগ
Next articleনোয়াখালীতে আ.লীগ-বিএনপির সংঘর্ষ, পুলিশসহ আহত ২০
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।