অতুল পাল: বাউফলে পরিত্যাক্ত ও নদী ভাঙণের কবলে পড়া ঝুঁকিপূর্ণ কয়েকটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবনের প্রকাশ্য নিলাম নিয়ে হট্টগোল ও মারধরের ঘাটনা ঘটেছে। আজ বুধবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তণে ওই ঘটনা ঘটে। পরে ওই নিলাম কার্যক্রম স্থগিত ঘোষণা করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাউফল উপজেলা নির্বাহী অফিসার।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বাউফল উপজেলার ৭টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে ৬টির পরিত্যাক্ত ভবন এবং একটির ভবন নদী ভাঙণের কবলে পড়ায় বিক্রির জন্য প্রকাশ্য নিলামের গণ বিজ্ঞপ্তি জারি করেন উপজেলা প্রশাসন। নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী আজ বুধবার সকাল থেকে শুরু হয় নিলাম কার্যক্রম। নিলামে অংশ নিতে ৬ টি বিদ্যালয় ভবনের জন্য ৫ হাজার ও নদী ভাঙণের কবলে পড়া ধুলিয়া ইউনিয়নের চর বাসুদেবপাশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবনটির জন্য ৩০ হাজার টাকা ফেরৎযোগ্য জামানত নেয়া হয়। আজ বেলা ১১ টায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উম্মুক্ত নিলামের আয়োজন করা হয়। ৬টি পরিত্যক্ত প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন নিলাম কার্যক্রম শেষ হওয়ার পর তেতুঁলিয়া নদীর ভাঙণের মুখে থাকা ধুলিয়া ইউনিয়নের চর বাসুদেবপাশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন উম্মুক্ত নিলাম ডাকা হয়। ওই ভবনটি সৌদি আরবের ফায়েল খায়ের প্রকল্পের মাধ্যমে ২০১৮ সালে সাড়ে ৬ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হয়েছিল। অত্যাধুনিক এই ভবনটি এখন তেতুঁলিয়া নদীতে বিলীন হওয়ার পথে। ভবনটির দাম হাঁকানোর সময় মেয়র সমর্থক ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীদের তোপের মুখে পড়েন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

এবিষয়ে নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক কর্মকর্তা বলেন, নামমাত্র মূল্যে ভবনটি ক্রয়ের জন্য মেয়র সমর্থিত ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীরা তৎপরতা শুরু করে। দাম হাঁকার সময় অন্যান্য ক্রেতাদের নানাভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শন করা হয়েছে। এক পর্যায়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার উপর কৌশলে চাপ প্রয়োগ করে ভবনটি হাতিয়ে নেয়ার চেষ্টা করা হয়। এসময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় করা হয়। পরে মেয়র সমর্থিত উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. হাসান মৃধা ভবনটি ক্রয় করতে ১৩ লাখ ৪৫ হাজার টাকা দাম বলেন। এসময় পৌর যুবলীগের সাধারন সম্পাদক উপজেলা চেয়ারম্যানের আস্থাভাজন অরবিন্দু দাস ১৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা দাম ওঠালে শুরু হয় হট্টগোল। হট্টগোলের মধ্যে অরবিন্দ দাসকে মারধরও করা হয় বলে একটি সূত্র জানায়। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন। এঘটনার পর স্থগিত করা হয় ওই ভবনের নিলাম কার্যক্রম। বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আল মামুন বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আল-আমিন বলেন, নিলাম নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে হট্টগোল হয়েছে। যার কারণে চর বাসুদেবপাশা প্রাথমিক বিদ্যালয়টির নিলাম কার্যক্রম সাময়িক স্থগিত করা হয়েছে। খুব শিগগিরই আবার ভবনটির নিলাম ডাকা হবে। নিলামে সকল ক্রেতার স্বতস্ফুর্ত অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা হবে।

Previous articleআমাদের খাবার নিজেদেরই উৎপাদন করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী
Next articleউলিপুরে মসজিদ, ক্লিনিক ও দুইটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ অর্ধশতাধিক বাড়ি তিস্তার গর্ভে বিলীন
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।