আবুল কালাম আজাদ :টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে একমাত্র মেয়ের মৃত্যু সইতে না পেরে মা বাসন্তী বণিক (৫০) হেক্সিসল পান করে আত্মহত্যা করেছেন বলে জানা গেছে।
শুক্রবার (১১ নভেম্বর) সকালে উপজেলার উয়ার্শী ইউনিয়নের নগর ভাতগ্রাম গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। বাসন্তী বণিক ওই গ্রামের প্রাণকৃষ্ণ বণিকের স্ত্রী। এ ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্র জানায়, বাসন্তী বণিক ও প্রাণকৃষ্ণ বণিক দম্পতির একমাত্র সন্তান পূজা বণিক (১৮) কিডনি রোগে আক্রান্ত হয়ে দীর্ঘদিন ধরে ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। বৃহস্পতিবার (১০ নভেম্বর) সন্ধ্যায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেখানেই তার মৃত্যু হয়। শুক্রবার ভোরে একমাত্র সন্তানের মরদেহ বাড়িতে পৌঁছলে বাসন্তী বণিক হতবিহ্বল হয়ে পড়েন। মেয়ের মৃত্যু মেনে নিতে না পেরে তিনি বাথরুমে গিয়ে হেক্সিসল পান করেন। কিছুক্ষণ পর তাকে অসুস্থ অবস্থায় কুমুদিনী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ইউপি সদস্য আবুল কালাম জানান, পূজা বণিক ছিলেন তাদের একমাত্র সন্তান। কিডনি রোগে আক্রান্ত হওয়ায় দীর্ঘদিন ধরে ঢাকায় তার চিকিৎসা চলছিল। এতে অনেক টাকা-পয়সাও খরচ হয়েছে। কিন্ত মেয়েকে বাঁচানো যায়নি। একমাত্র মেয়ে ও স্ত্রীর মৃত্যুতে প্রাণকৃষ্ণও বার বার মূর্ছা যাচ্ছেন। তাকে সান্ত্বনা দেওয়ার ভাষা খুঁজে পাচ্ছেন না কেউ।

মির্জাপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জহিরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বাসন্তী বণিকের সুরতহাল সম্পন্ন হয়েছে। মির্জাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত (ওসি) শেখ আবু সালেহ মাসুদ করিম বলেন, ঘটনাটি অত্যন্ত হৃদয়বিদারক। পরিবার আবেদন করলে বিনা ময়নাতদন্তে বাসন্তী বণিকের মরদেহ হস্তান্তর করা হবে বলে তিনি জানান।

Previous articleচাটখিল উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদকের পদত্যাগ
Next articleহারাম খেলে নামাজ হবে না, আমাদের ঈমানী শক্তি বাড়াতে হবে: মন্ত্রিপরিষদ সচিব
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।