আরিফুর রহমান: মাদারীপুরে নিখোঁজের দুইদিন পর মৌসুমি আক্তার (২৪) নামে এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে সদর উপজেলার উত্তর দুধখালী এলাকার নদীর পাড়ের বাগান থেকে মৌসুমির লাশ উদ্ধার করা হয়।

স্বজনদের দাবী, ধর্ষণ শেষে হত্যা করা হয়েছে মৌসুমীকে। নিহত মৌসুমি আক্তার সদর উপজেলার দুধখালী ইউনিয়নের উওর দুধখালী গ্রামের মানিক হাওলারের মেয়ে ও একই এলাকার সৌদি প্রবাসী ইলিয়াস মীরার স্ত্রী। তিনি কিছুদিন ধরে মানসিক রোগে ভুগছিলেন। তার ৫ ও ৪ বছর বয়সী ২ টি শিশু সন্তান রয়েছে।

পুলিশ ও স্বজনরা জানায়, বুধবার বিকেলে নিজ বাবার বাড়ি উত্তর দুধখালী থেকে একই গ্রামে দাদির বাড়ির উদ্দেশ্যে বের হয় মৌসুমি। দাদির সাথে দেখা করে আর বাড়িতে ফিরে আসেনি সে। পড়ে তার কোন খোঁজ না পেয়ে চারদিকে খোঁজখুজি শুরু করে পরিবার। ঘটনার দুইদিন পরে শুক্রবার বিকেলে স্থানীয় এক নারী নদীর পাড়ের বাগানে কাঠ কুড়াতে গেলে তার মরদেহ গলায় দড়ি পেচানো অবস্থায় ভাঙ্গা গাছের ডালের সাথে মাটিতে লুটিয়ে পড়া অবস্থায় দেখতে পেয়ে স্থানীয়দের খবর দেয়। পরবর্তীতে থানায় খবর দিলে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে।

নিহতের খালাত বোন তানজিলা আক্তার বলেন, আমার আপুকে ধর্ষণ শেষে হত্যা করে গাছের ডালের সাথে ঝুলিয়ে দেয়া হয়েছে। আপু নয়তো আত্মহত্যা করবে কেন। তার ২ টি ছোট ছোট বাচ্চা রয়েছে। আমরা আইনের কাছে ঘটনার তদন্ত করে সুষ্ঠু বিচারের দাবী জানাই।

এ বিষয়ে মাদারীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনোয়ার হোসেন চৌধুরী জানান, এই ঘটনার রহস্য উদঘাটনে কাজ শুরু করেছে পুলিশ। ময়নাতদন্তের ফলাফল আসলে বিষয়টি জানা যাবে।

Previous articleআখেরি মোনাজাতের মধ্যে দিয়ে শেষ হলো রংপুর আঞ্চলিক ইজতেমা
Next article১০ বছরে দেশ থেকে ৮৬ লাখ কোটি টাকা পাচার হয়েছে: মির্জা ফখরুল
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।