রবিবার, জুন ১৬, ২০২৪
Homeসারাবাংলাতিস্তার চরে চাষীদের ভাগ্য বদল

তিস্তার চরে চাষীদের ভাগ্য বদল

ফজলুর রহমান: রংপুরের পীরগাছা উপজেলার দুটি ইউনিয়নে বহমান তিস্তার বুক চিরে জেগে উঠেছে বিশাল চর। গত আগস্ট ও সেপ্টেম্বর মাসে দফায় দফায় বন্যায় সব হারানোর পর আবারও ঘুরিয়ে দাঁড়ানোর লড়াইয়ে নেমেছে তিস্তা পাড়ের প্রান্তিক চাষিরা।

তিস্তায় ভেঙে যাওয়া বাড়ি এখন ধু-ধু বালির চর। আর সেই চরেই কৃষি বিপ্লব ঘটিয়েছে বন্যায় সব হারানো প্রান্তীক চাষীরা। তিস্তা নদীর চরে বিভিন্ন ফসল ফলিয়ে এখন আয়ের পথ দেখছেন। বিস্তীর্ণ বালুচরে শোভা পাচ্ছে নানারকম ফসলের সমারোহ। আর এই ফসল স্থানীয় বাজারে বিক্রি করে চরের হত দরিদ্র প্রান্তীক চাষীরা সুদিনের গল্প বুনতে শুরু করেছে। জানা যায়, উপজেলা তাম্বুলপুর ও ছাওলা ইউনিয়নের বিশাল এলাকা জুড়ে রয়েছে তিস্তা নদী। প্রতি বছর তিস্তার ভাঙনে নদীর বুকে জেগে উঠেছে বিশাল বিশাল চর । মাইলের পর মাইল পড়ে থাকা চরের জমিতে চাষ শুরু করেছে নদী ভাঙনের কবলে পড়া চাষিরা। ভাগ্য বদলের স্বপ্নে ফসল বুনে ঘরে তুলে লাভবান হচ্ছেন খেটে খাওয়া মানুষ। এ চরগুলোর মানুষের জীবন- জীবিকার প্রধান মাধ্যম কৃষিকাজ ও মাছ ধরা। বংশ পরম্পরায় চরে থাকা এ মানুষগুলো নিজেদের পরিশ্রমে আর ধু-ধু বালিতে ফসলের চাষবাস করে যাচ্ছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলায় এবারে ১শ ৪০ হেক্টর জমিতে দেশি ও হাইব্রিড জাতের মরিচ চাষ হয়েছে। প্রতি বিঘায় ৩০ থেকে ৪০ মণ মরিচ উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের শিবদেব গ্রামের কৃষক সোলায়মান আলী জানান, তিনি কয়েক বছর ধরেই মরিচ চাষ করছেন। দেশি জাতের মরিচ প্রতি বিঘায় ৩০/৩৫ মণ এবং হাইব্রিড জাতের প্রতি বিঘায় ৪০/৪৫ মন পর্যন্ত মরিচ পাওয়া যায়। মরিচ চাষে লাভ হওয়ায় এ এলাকার চাষিরা বেশি আগ্রহী হচ্ছে।

উপজেলার তাম্বুলপুর ইউনিয়নের চররহমত গ্রামের চরের মরিচ চাষি ছাপর আলী মন্ডল জানান, গত বছর চরের প্রতি বিঘা জমি থেকে প্রায় ৩৫ মণ কাঁচা মরিচ পাওয়া গেছে। এ বছরের গাছে ভালোই মরিচ ধরেছে। সবে মাত্র মরিচ উত্তোলন শুরু হয়েছে। বাজারে ভালো দাম পাওয়ায় এবারের সবচেয়ে বেশি আয় করতে পারবে বলে তিনি জানান।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন কর্মকর্তা আশরাফুজ্জামান জানান, চলতি বছরে জমিতে দীর্ঘ সময় বন্যার পানি না থাকায় মরিচের গাছে রোগ বালাই কম। মরিচ চাষে কৃষকের উৎপাদন খরচ কম এবং উৎপাদন অনেক বেশি। মাঠ পর্যায়ের কৃষি কর্মকর্তাগণ নিয়মিত কৃষকদের পরামর্শ প্রদান করছেন। চরের চাষিরা চরাঞ্চলে সবজিসহ বিভিন্ন ফসল উৎপাদন করছেন।

আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerbangladesh.com.bd/
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments