অধ্যাপক বিথীকা বণিক।

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ভাইয়ের অপকর্মের জন্য রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা হলের প্রাধ্যক্ষ পদ থেকে সংস্কৃত বিভাগের অধ্যাপক বিথীকা বণিককে আনুষ্ঠানিক অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

পাশাপাশি মার্কেটিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আঞ্জুমান আরাকে সাময়িক প্রাধ্যক্ষ পদে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

এর আগে ভাই শ্যামল বণিকের যৌন হয়রানির শিকার হয়েছিলেন ইংরেজি বিভাগের এক ছাত্রী। এনিয়ে আন্দোলনের মুখে হল প্রাধ্যক্ষ পদ থেকে অধ্যাপক বিথীকা বণিককে আনুষ্ঠানিক অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ে পক্ষ থেকে যৌন হয়রানির বিষয়ে কিছু বলা হয়নি।

শুক্রবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার প্রফেসর এমএ বারী স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞাপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বার্থে সংস্কৃত বিভাগের অধ্যাপক বিথীকা বণিককে বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা হলের প্রাধ্যক্ষের পদ থেকে অব্যাহতি দেয়া হলো এবং হলের আবাসিক শিক্ষক আঞ্জুমান আরাকে সাময়িক প্রাধ্যক্ষের পদে হিসেবে দায়িত্ব পালনের অনুমতি দেয়া হলো। প্রাধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালনের জন্য তিনি ভাড়ামুক্ত বাসা ও অন্যান্য সুবিধা পাবেন।

এর আগে অধ্যাপক বিথীকা বনিকের বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন বিনোদপুরের বাসায় টিউশনি করাতে গিয়ে তার ভাই শ্যামল বণিকের যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন ইংরেজি বিভাগের এক ছাত্রী। এ ঘটনায় তীব্র আন্দোলনে নামেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির কাছে প্রাধ্যক্ষের নানা অনিয়ম ও যৌন হয়রানি ঘটনায় তার পদ থেকে অব্যাহতি চেয়ে ছয় দফা দাবি তুলে ধরে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনের মুখে সেই অধ্যাপককে দ্রুত অব্যাহতি দেয়া হবে বলে ঘোষণা দিয়েছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক আবদুস সোবহান।