লন্ডনে ব্রিটিশ পুলিশের কাছে নিরাপত্তা চাইলেন নুসরাত জাহান

বাংলাদেশ ডেস্ক: তার প্রাণসংশয়, হত্যার হুমকি পাচ্ছেন নাগাড়ে। তাই লন্ডনে শুটিং করতে যাওয়া ভারতীয় সাংসদ ও অভিনেত্রী নুসরাত জাহান ব্রিটিশ পুলিশের কাছে নিরাপত্তা প্রার্থনা করলেন। লন্ডনে ভারতীয় হাইকমিশনার গায়েত্রী ঈসার কুমারের মারফত তা পৌঁছে গেছে ব্রিটিশ পুলিশের সদর দপ্তর স্কটল্যান্ড ইয়ার্ডে। নুসরাত জাহানের আশংকা, লন্ডনে তাকে যে কোনও মুহূর্তে খুন করা হতে পারে। তাই, তিনি নিরাপত্তা চেয়েছেন ব্রিটিশ পুলিশের কাছে। ভারতের বিদেশ মন্ত্রক ও পশ্চিমবঙ্গে সরকারকেও সব জানিয়েছেন।
বিপত্তির সূত্রপাত ১৭ই সেপ্টেম্বর বসিরহাটের সাংসদ ও টলিউডের হার্টথ্রব নুসরাতের একটি পোস্ট ঘিরে। ওই পোস্টটিতে তিনি মহালয়ার শুভেচ্ছা জানান।

এর তিনদিন পরে ইনস্টাগ্রামে তিনি দূর্গা সেজে একটি ভিডিও পোস্ট করেন। এরপরই মুসলিম ধর্মযাজকরা ফুঁসে ওঠেন। তারা বলেন, হিন্দুদের পুজোয় এভাবে অংশ নেয়া ইসলাম বিরোধী। ফতোয়াও জারি হয় তার বিরুদ্ধে। এরপরই হত্যার হুমকি পেতে থাকেন নুসরাত। শঙ্কিত হয়ে তিনি ব্রিটিশ পুলিশকে লিখেছেন, ভারত ও প্রতিবেশী রাষ্ট্র থেকে খুনের হুমকি পাচ্ছি। আমার জীবন রক্ষায় আপনাদের সাহায্য চাই।

ইসলাম ধর্মের অন্যতম পীঠস্থান ভারতের দেওবান্দ এর ধর্মযাজক মৌলানা ইসাক গোড়া বলেছেন, নুসরাত কট্টর ইসলাম বিরোধী কাহিনী করেছেন হিন্দু পৌত্তলিকতাকে সমর্থন করে। আরেক ইসলাম ধর্মযাজক মৌলানা আসাদ কার্শি বলেছেন, নুসরাত বারবার মুসলিম আবেগ, অনুভূতিকে আঘাত করছেন। উল্লেখযোগ্য, গতবছর দুর্গাপুজোয় মাথায় সিঁদুর দিয়ে নুসরাত সিঁদুর খেলায় অংশ নেয়ায় তীব্র বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছিল। শুটিংয়ে ব্যস্ত নুসরাত জানান, তিনিই ১৬ অক্টোবর পর্যন্ত লন্ডনে থাকবেন। মৌলবাদীদের মানসিকতা তিনি মানেন না জানিয়ে নুসরাত বলেন, আমি মানবতাবাদে বিশ্বাসী। মানবতাই আমার জীবনের আদৰ্শ।