যৌন নির্যাতনের প্রতিশোধ নিতে নির্যাতনকারীকে ‘২৫ কোপে’ হত্যা

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: দীর্ঘদিন ধরে যৌন নির্যাতন করার প্রতিশোধ নিতে ভারতের মধ্যপ্রদেশের এক বহিষ্কৃত কংগ্রেস নেতাকে কুপিয়ে খুন করেন ভুক্তভোগী নারী। ব্রজভূষণ শর্মা নামে ওই ব্যক্তিকে ২৫ বার কুপিয়েছেন ওই নারী।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জি নিউজের খবরে বলা হয়, মধ্যপ্রদেশের গুনার এলাকায় ঘটেছে এ ঘটনা। ব্রজভূষণ শর্মা গতকাল শনিবার রাত ১১টার দিকে ওই নারীর বাড়িতে যান। পরে তাদের মাঝে কথা কাটাকাটির পর ওই নারীকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন ব্রজভূষণ। নিজেকে রক্ষা করতে ও দীর্ঘদিন ধরে পুষে রাখা ক্ষোভ থেকে ব্রজভূষণকে পর পর ২৫ বার কোপ দেন ওই নারী। এতে ঘটনাস্থলেই কংগ্রেস থেকে বহিষ্কৃত ওই নেতার মৃত্যু হয়। খুনের পর ওই নারী নিজেই পুলিশকে ফোন করে খবর দেন।

পুলিশ জানতে পেরেছে, এই ঘটনার নৃশংসতা দেখে অবাক পুলিশও। কতটা ঘৃণা ও ক্ষোভ ভেতরে থাকলে একজন নারী ২৫বার কুপিয়ে কাউকে খুন করতে পারেন! আপাতত আদালতের নির্দেশে পুলিশি হেফাজতে রয়েছেন সেই নারী। তার বিরুদ্ধে খুনের মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। কয়েক বছর ধরেই ওই নারীর সঙ্গে ব্রজভূষণের অবৈধ সম্পর্ক ছিল ধারণা করছে পুলিশ। কিন্তু ঠিক কী কারণে মহিলা কংগ্রেস নেতাকে খুন করেছে, তা এখনো পরিষ্কার নয়।

ওই নারী দাবি করেছেন, শনিবার রাতে ব্রজভূষণ তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেছিলেন। আর তাই তিনি তাকে খুন করেছেন। ওই নারী আরও দাবি করেন, এর আগেও কংগ্রেসের বহিষ্কৃত এ নেতা তার আপত্তিজনক ভিডিও তুলেছেন। সেই ভিডিও দেখিয়ে দিনের পর দিন তাকে ব্লাকমেইল করতেন। আর তাই দীর্ঘদিন ধরেই তিনি অস্বস্তিতে। বছরের পর বছর ধরে ব্রজভূষণ তাকে যৌন নির্যাতন চালিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন। ধৈর্যের বাঁধ ভেঙে যাওয়ায় তাকে কুপিয়ে খুন করেন বলেও দাবি করেছেন তিনি।

নিহত নেতার স্ত্রী ওই নারীকেই মূল দোষী বলে অভিযোগ করেছেন। তার দাবি, তার স্বামীকে নিজের প্রেমের জালে ফাঁসিয়েছিলেন ওই নারী। তার থেকে নিয়মিত টাকা-পয়সা, গহনা নিতেন তিনি। কোনো কারণে ঝগড়া হওয়ায় ওই নারী তার স্বামীকে কুপিয়ে খুন করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন নিহতের স্ত্রী।