বাংলাদেশ প্রতিবেদক: জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে লঞ্চ মালিক সমিতি লঞ্চ ও স্টিমারের ভাড়া বৃদ্ধির যে দাবি করেছিল, সেবিষয়ে অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষের সাথে শনিবার লঞ্চ মালিক সমিতির যে বৈঠক হওয়ার কথা ছিল তা রোববার অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে তেলের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় শতভাগ ভাড়া বাড়ানোর দাবিতে ধর্মঘট শুরু করেছে লঞ্চ মালিক সমিতি।

শুক্রবারের ওই বৈঠকে বাস ও ট্রাকের ধর্মঘট শুরু হলেও লঞ্চ চলাচল অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত নেন তারা। শনিবারের মধ্যে ভাড়া বাড়ানো না হলে তারাও ধর্মঘটের পক্ষে মত দেন। তবে এদিন ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্ত না আসায় লঞ্চ মালিকরা ধমর্ঘটের ডাক দেন।

এ ব্যাপারে লঞ্চ মালিকদের সংগঠন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-চলাচল (যাপ) সংস্থার চেয়ারম্যান মাহবুব উদ্দিন আহমদ বলেন, ভাড়া বাড়ানোর দাবি জানিয়ে চিঠি দিয়েছিলাম। এতে শতভাগ ভাড়া বাড়ানোর কথা জানিয়েছি। শনিবার এ বিষয়ে আমাদের সিদ্ধান্ত জানানোর কথা ছিল। কিন্তু আমাদের দাবি না মানায় লঞ্চ মালিকরা ধর্মঘটের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

তবে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান গোলাম সাদেক জানান, লঞ্চ মালিকদের দাবিগুলো নিয়ে আগামীকাল (রোববার) তাদের সাথে আমরা আলোচনা করবো। ওই বৈঠক হওয়ার আগ পর্যন্ত লঞ্চ ও স্টিমার আগের ভাড়ায় চলবে বলেও জানান তিনি।

এর আগে বুধবার ডিজেল ও কেরোসিনের দাম ২৩ শতাংশ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত জানায় জ্বালানি মন্ত্রণালয়। এরপর বাংলাদেশ ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান মালিক সমিতি দাম বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে সারাদেশে পণ্য পরিবহনে ধর্মঘট আহ্বান করে।

এমন পরিস্থিতিতে শুক্রবার দুপুরে লঞ্চ মালিক সমিতির পক্ষ থেকে তেলের দাম বাড়ার কারণে লঞ্চের ভাড়াও শতভাগ বাড়ানোর দাবি জানানো হয়। শনিবার দুপুরের মধ্যে এবিষয়ে সরকারকে সিদ্ধান্ত নিতে সময় বেঁধে দিতে বলা হয়েছে।

Previous articleনোয়াখালীতে জামায়াত নেতা গ্রেফতার
Next articleচান্দিনায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকদের বিদায়ী সংবর্ধনা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।