জয়নাল আবেদীন: বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রংপুর জেলা সভাপতি হাসনা চৌধুরী সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন গত বছর মার্চ থেকে চলতি বছর অক্টোবর পর্যন্ত তরুণ সমাজের অনেক ইতিবাচক কাজের পাশাপাশি কিছু নেতিবাচক প্রবণতা আশঙ্কাজনকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।

মূল্যবোধের অবক্ষয়ে নারী ও কন্যার প্রতি সহিংসতা, ধর্ষণ, দলবদ্ধ ধর্ষণ, ধর্ষণের পর হত্যা করার মতো ঘটনা অব্যাহতভাবে ঘটে চলেছে। যা সত্যিই উদ্বেগজনক। বিকেলে রংপুর নগরির একটি কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন সাম্প্রতিক সময়ে একটি ধর্মীয় উগ্রবাদী সম্প্রদায় নানা অপতৎপরতা চালিয়ে সমাজকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছে। সমাজের মধ্যে সাধারণ মানুষ, সংখ্যালঘু সম্প্রদায় ও নারীরা নিরাপত্তাহীনতার পাশাপাশি প্রতিনিয়ত নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। যা বর্তমান সমাজসহ নারী আন্দোলনকে উদ্বিগ্ন করে তুলছে। মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় লিগ্যাল এইড উপ-পরিষদের সংরক্ষিত ১৩টি সংবাদপত্রের উদ্ধুতি দিয়ে বলা হয় ২০২০ সালে দেশে ৩ হাজার ৪শ৪০ জন নারী ও কন্যা শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এর মধ্যে ১ হাজার ৭৪ জন ধর্ষণ, ২শ৩৬ জন গণধর্ষণ ও ৩৩ জন ধর্ষণের পর হত্যা এবং ৩ জন ধর্ষণের ঘটনাকে কেন্দ্র আত্মহত্যা করেছেন। নারীর প্রতি এ সহিংসতা বন্ধে সরকারের কঠোর অবস্থান ও ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ডের বিধান থাকার পরও শুধু সচেতনতার অভাব এবং মূল্যবোধের অবক্ষয়ের কারণে এ ধরনের ঘটনা বাড়ছে।সংবাদ সম্মেলনে নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ হিসেবে রংপুরে বিভিন্ন কর্মসূচি ঘোষণা করে মহিলা পরিষদ।এসময় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন পরিষদের রংপুর জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক রুম্মানা জামান সহ-সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা চৌধুরী ।

Previous articleমনোনয়নবঞ্চিত আ’লীগ নেতা প্রিজাইডিং অফিসার!
Next articleসোনামসজিদ স্থলবন্দরে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম বন্ধ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।