বাংলাদেশ প্রতিবেদক: গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বলেছেন, ‘যেকোনো নাগরিকের তার ঘরের ভেতর স্বাধীনভাবে বসবাস করার এখতিয়ার রাখে। একজন কাফের বা মোনাফেক ছাড়া কারো ঘরের ভেতর কেউ অস্ত্র বা বোমা বা ক্যামেরা পাঠাতে পারে না। আমাকে মারার জন্যে খুনিরা বিভিন্নভাবে পরিকল্পনা করছে।’

শনিবার (৯ অক্টোবর) মহানগরের গাছা এলাকার নিজ বাসভবনে সিটি করপোরেশনের ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন মেয়র। ৬২ জন কাউন্সিলর মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন।

মেয়র বলেন, যারা ২০১২ ও ২০১৩ সালে আমাকে হত্যা করার জন্য পাঁয়তারা করেছিল তারা এখনও সজাগ আছে। তারা এখনও আমাকে ও আমার পরিবারকে হত্যার জন্য পরিকল্পনা করছে। আমাকে মারার জন্যে আমার ঘরের ভেতর ক্যামেরা পাঠানো হয়েছে। আমার মেয়রপদ ও আওয়ামী লীগকে কলঙ্কিত করার জন্য, আমার ৪০ লাখ নগরবাসীকে অপমান করার জন্য কীভাবে তারা বেডরুমে ক্যামেরা পাঠায় তার বিচার আমি রাষ্ট্রের কাছে চাই।

আমি অন্যায় করি না, অন্যায়ের সঙ্গে কখনো আপস করব না- উল্লেখ করে জাহাঙ্গীর আলম বলেন, অপরাধ করলে আমার অভিভাবক প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা আমাকে যে শাস্তি দেবেন আমি তা মাথা পেতে নিব। কিন্তু কোনো সন্ত্রাসী লুটপাটকারীদের এই সিটি করপোরেশনে ঢুকতে দেওয়া হবে না।

আমি সবাইকে নিয়েই গাজীপুরকে একটি পরিকল্পিত শহর হিসেবে গড়তে চাই উল্লেখ করে মেয়র আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী শেখ হাসিনার সহযোগিতায় আমি গাজীপুর মহানগরে ৮০০ কিলোমিটার রাস্তার কাজ করেছি। এই কাজগুলো আপনাদের জন্য, এই শহরের মানুষের জন্যে করে যাচ্ছি। স্বাধীন দেশের মানুষ যেন স্বাধীনভাবে চলতে পারে। অথচ একটি মহল আমার বিরুদ্ধে চক্রান্ত শুরু করেছে। আমাকে ফাঁসানোর জন্য ষড়যন্ত্রগুলো শুরু করেছে।

Previous articleরাজধানীতে জিপ গাড়ির ভেতর থেকে মরদেহ উদ্ধার
Next articleপাকিস্তানের পরমাণু বোমার জনক আবদুল কাদির খান আর নেই
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।