বাংলাদেশ প্রতিবেদক: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, খেলা হবে ভোট জালিয়াতি, লুটপাট, দুর্নীতি, গুম খুনের, নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে। বিএনপির বিরুদ্ধে খেলা হবে। আসল খেলা হবে ডিসেম্বরে।

রোববার বিকেলে নারায়ণগঞ্জের ওসমানী স্টেডিয়াম মাঠে জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আজ আমি নারায়ণগঞ্জে এসে আনন্দিত যে এক মঞ্চে দুই গণমানুষের নেতা শামীম ওসমান ও মেয়র আইভী পাশাপাশি আছেন। এরাই নারায়ণগঞ্জের শক্তি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, এ দুর্যোগেও নারায়ণগঞ্জের মানুষ সম্মেলনে হয়েছে। তত্ত্বাবধায়কের আশা বাদ দিন। উচ্চ আদালত এটা বাদ দিয়েছে। আগামীতে নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশনের অধীনে নির্বাচন হবে। সরকার কোনো হস্তক্ষেপ করবে না। আগামীতে মোকাবেলা হবে।

সম্মেলনের উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য ও
কৃষিমন্ত্রী ড. মোহাম্মদ আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, কিছু কিছু মিডিয়ার ভাই, সুশীল সমাজ, বুদ্ধিজীবিরা বিএনপির কয়েকটি সমাবেশ দেশে অনেকেই এখন নানা ধরনের স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছে। কিছু মিডিয়া উচ্ছ্বসিত হচ্ছে।

তিনি বলেন, প্রায় প্রতিদিন দেশের বিভিন্নস্থানে আমাদের সভা সমাবেশ হচ্ছে। আমরা প্রতিদিন বড় বড় সমাবেশ করতে পারি। আমাদের শেকড় মাটিতে। কয়েকটি সমাবেশ করে হুমকি দিয়ে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতাচ্যুত করতে পারবেন না। আওয়ামী লীগ কখনো পর্দার অন্তরাল থেকে ক্ষমতায় আসেনি। আমরা নির্বাচনে যাব, নির্বাচন করব। আপনারা আসেন সুষ্ঠু সুন্দর নির্বাচন হবে।

তিনি আরো বলেন, দীর্ঘ দিন পর নারায়ণগঞ্জে সম্মেলনে আপনাদের উচ্ছ্বাস দেখছি। নারায়ণগঞ্জের ওসমান পরিবার সবসময় আওয়ামী লীগকে লালন করেছে। বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনীতে আমরা তা দেখতে পাই। বাঙালিরা কোনোদিন স্বাধীন ছিল না। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সামনের কাতারে থেকে আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠা করেছেন। সকল আন্দোলনে নারায়ণগঞ্জের মানুষ ভূমিকা রেখেছে। আজকের এ চিত্র প্রমাণ করে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের ঘাটি ছিল। ভবিষ্যতেও তা থাকবে।

রাজ্জাক আরো বলেন, ২০০১ সাল থেকে ২০০৬ বিএনপি কোনো উন্নয়ন করতে পারেনি। তারেক জিয়ার ছাত্রদল-যুবদলের সন্ত্রাসে সারা দেশ প্রকম্পিত হয়েছিল। ২০০৯ সালের নির্বাচনের আগে আমরা বলেছিলাম পদ্মাসেতু করব, দেশকে সন্ত্রাসমুক্ত করব। আজ আমরা তা করছি। এখন কার্তিক মাস। অতীতে যুগ যুগ ধরে দেখেছি এ সময় মানুষ না খেয়ে থাকত। গত চৌদ্দ বছরে একজন মানুষ না খেয়ে রয়েছে একজনও এ প্রমাণ দিতে পারবে না।
এদিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ও ষষ্ঠ কাউন্সিলের মধ্য দিয়ে পুনরায় সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের বর্তমান সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হাই ও বর্তমান সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আবু হাসনাত মো. শহিদ বাদল।

রোববার বিকেলে আগামী তিন বছরের জন্য তাদের নাম ঘোষণা করেন প্রধান অতিথির বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শহরের ইসদাইর পৌর ওসমানী স্টেডিয়ামে বেলা আড়াইটার দিকে জাতীয় সঙ্গীতের সাথে সাথে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কৃষিমন্ত্রী ডা. মো. আব্দুর রাজ্জাক এমপি।

নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হাইয়ের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আবু হাসনাত মো. শহিদ বাদলের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। প্রধান বক্তা ছিলেন আওয়ামী লীগের ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম এমপি।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কামরুল ইসলাম এমপি, আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. কাজী নজিবুল্লাহ হিরু, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক মৃণাল কান্তি দাস এমপি, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মেহের আফরোজ এমপি, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কার্যকরি সদস্য অ্যাড. রিয়াজুল কবীর কাওছার, আনোয়ার হোসেন, সাহাব উদ্দীন ফরাজী, নারায়ণগঞ্জ-১ আসনের এমপি বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী (বীর প্রতীক), নারায়ণগঞ্জ- ৪ আসনের এমপি এ কে এম শামীম ওসমান, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র (উপমন্ত্রী পদমর্যাদা) ডা. সেলিনা হায়াত আইভী, নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের এমপি নজরুল ইসলাম বাবু।

Previous articleহাতিয়ার সঙ্গে সারা দেশের নৌ-যোগাযোগ বন্ধ
Next articleব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে হারানো দুই শিশুকে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিল রাজশাহী পুলিশ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।