বাংলাদেশ প্রতিবেদক: কাতার বিশ্বকাপে প্রথম লাল কার্ড দেখলেন ওয়েলসের গোলরক্ষক ওয়াইন হেনেসি। প্রতিপক্ষ দলের খেলোয়াড়কে লাথি মারার কারণে তিনি এ শাস্তি পান।

শুক্রবার ইরানের বিপক্ষে ম্যাচে নির্ধারিত সময়ের শেষ দিকে ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারির (ভিএআর) সাহায্য নিয়ে তাকে বহিষ্কার করেন মাঠের রেফারি।

ম্যাচের ৮৪তম মিনিটে সতীর্থের থ্রু পাস ধরতে এগিয়ে গিয়েছিলেন আগের ম্যাচের জোড়া গোলদাতা মেহদি তারেমি। সামনে কোনো ডিফেন্ডার না থাকায় বল আটকাতে বক্স থেকে বেরিয়ে আসেন গোলরক্ষক হেনেসিও। তবে বল ধরতে তো পারেননি, উল্টো মেহদিকে আঘাত করে ফেলেন তিনি।

তবে ঘটনার আকস্মিকতায় ঠিকভাবে বুঝতে পারেননি গুয়েতেমালার রেফারি মারিও এস্কোবার। হলুদ কার্ড দেখান তিনি। হাতে কার্ড নেবার সাথে সাথেই অবশ্য ইরানি খেলোয়াড়েরা প্রতিবাদ করেন বেশ জোরেশোরেই। তবে লাভ হয়নি। সিদ্ধান্তে অনঢ় থাকেন রেফারি। খেলাও শুরুর নির্দেশ দেন। তবে পরে ভিএআরে বদলে যায় সিদ্ধান্ত।

আর প্রতিপক্ষের একজন কমে যাওয়ার পর ইরানের জোশ যেন আরো বেড়ে যায়। একের পর এক আক্রমণ করতে থাকে। যদিও গোলের দেখা মিলছিল না। নির্ধারিত সময়ের পর যোগ করা সময়ও যখন শেষের পথে, তখনই দুটি গোল পেয়ে যায় ইরান। ২-০ ব্যবধানে জিতে ভালোভাবেই টিকে রইল বিশ্বকাপে।

উল্লেখ্য, ভিএআরের ব্যবহার শুরু হয়েছে গত বিশ্বকাপ থেকেই। তবে এবার তার ব্যবহার নিখুঁত করতে অত্যাধুনিক সব প্রযুক্তি ব্যবহার করা হচ্ছে কাতার বিশ্বকাপে।

Previous articleরংপুর সিটি নির্বাচনে নৌকা জেতাতে সবার সহযোগিতা চাইলেন আ’লীগ প্রার্থী ডালিয়া
Next articleঋণের মামলায় ঈশ্বরদীর ১২ কৃষক জেলহাজতে
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।