রাজাপুরে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা রাতের আঁধারে ভেঙ্গে দিল দালান

রেজাউল ইসলাম পলাশ: ঝালকাঠির রাজাপুরে প্রতিপক্ষের লোকজন ফিলমি স্টাইলে রাতের অন্ধকারে হামলা চালিয়ে একটি পাকা ভবন ভেঙ্গে দিয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার মঠবাড়ি ইউনিয়নের উত্তর বাঘরি গ্রামের হোসনেয়ারা বেগমের বসত বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা হামলা ভাঙচুর লুটপাটসহ স্বেচ্ছাচারিতার যে চরম পরাকাষ্ঠা দেখিয়েছেন তাতে এলাকার মানুষের জীবন, সম্পদ ও সম্মানের নিরাপত্তার ক্ষেত্রে চরম অনিশ্চয়তা দেখা দেয়।
এ ঘটানায় ভুক্তভোগীরা ৪ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত সহ ১২ জনকে আসামি করে রাজাপুর থানায় শুক্রবার (২০ সেপ্টেম্বর) বিকালে মামলা দায়ের করেছেন।
মামলা সূত্রে জানা যায়, হোসনেয়ার বেগম ও তাঁর তিন বোন যৌথভাবে পৈতৃক বাড়িতে ৪ রুমের একটি পাকা ভবন নির্মাণ করে। মায়ের ১৯৮১সালে ক্রয় করা (অন্য মামাদের কাছ থেকে) জমিতে নতুন করে দালান ঘর নির্মাণের সময় তাদের মামা মো. হাবিব গাজী ও তাঁর ছেলে (মামাত ভাই) মো. আরিফ গাজী কোন বাধা দেয়নি। অথচ ঘর নির্মাণের বহুদিন পর গত বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে ঘরে কেউ না থাকার সুজোগে ৭-৮ জন ভাড়াটে লোক নিয়ে পাকা ভবনটি ফিলমি স্টাইলে ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেয়। এ সময় দেয়াল ভাঙ্গার শব্দে প্রতিবেশিরা এগিয়ে এলে তাদের প্রাননাশের হুমকী দিয়ে তাড়িয়ে দেওয়া হয় বলে মামলার এজাহারে উল্ল্যেখ করা হয়। সরেজমিনে গেলে দেখা যায় ঐ জমিতে বাদী হোসনেয়ারা বেগমের এক দশক পূর্বে মারা যাওয়া পিতা মাতার বাধানো কবর রয়েছে।
মামলার বাদি হোসনেয়ারা বেগম বলেন, ‘বাবার আমল থেকে এই জায়গায় বসবাস করে আসছি। অথচ এখন আমাদের মামাত ভাই আরিফ গাজী বলছে, এখানে আমরা জায়গা পাবোনা। আমাদের কোন ভাই না থাকায় জমির কোন অধিকার আমাদের নেই। আমাদের বসত ঘরটি ভেঙ্গে মালামাল লুট করে অন্তত ৩ লাখ টাকার ক্ষতি করেছে। আমরা এর বিচার চাই।’
মামলা দায়ের হওয়ার পর থেকে আরিফ গাজী পলাতক থাকায় তাঁর কোন মন্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। এ ব্যপারে ঐ এলাকার লোকজন বলেন প্রশাসনের নিষ্ক্রিয়তাই এই জনপদটিকে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদের মগের মুল্লুকে পরিণত করছে।
রাজাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘মামলার অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। ঘটনা তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’