রনি আমার সর্বনাশ করেছে, বিয়ে না করলে বাড়ি ফিরব না: বিয়ের দাবিতে কলেজছাত্রী

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদায় বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান নিয়েছেন এক কলেজছাত্রী। বিয়ে না করা পর্যন্ত নিজের বাড়িতে না ফেরার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

ওই কলেজছাত্রী জানান, বৃহস্পতিবার (৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বিয়ের কথা বলে প্রেমিক রনি তাকে দামুড়হুদায় আসতে বলেন। তারপর থেকে মোবাইল ফোন বন্ধ করে রাখেন রনি। বিকেলে রনির বাড়িতে খোঁজ করতে গেলে তিনি সটকে পড়েন। এখন পর্যন্ত রনির দেখা মেলেনি। তাই বিয়ের দাবি নিয়ে তিন দিন ধরে রনির বাড়িতে অবস্থান করছেন তিনি।

ওই কলেজছাত্রী আরও বলেন, রনি আমার সঙ্গে সব সম্পর্ক করেছে বিয়ের মিথ্যা আশ্বাসে। তাই ওকে বিয়ে করে আমি বাড়ি ফিরব, না হলে আত্মহত্যা করব।

পুলিশ প্রশাসন ও মানবাধিকার সংগঠনের কাছে ন্যায়বিচার ও সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি।

জানা গেছে, দামুড়হুদা উপজেলার ওই কলেজছাত্রী (২১) সঙ্গে প্রায় ৮ বছর আগে একটি বিয়ে বাড়িতে পরিচয় হয় উপজেলার পুড়াপাড়া গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে রনির। পরিচয় থেকে দু’জনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। দীর্ঘ ৮ বছর ধরে দু’জনের সম্পর্ক থাকার পর বিয়ের সিদ্ধান্ত নিলে রনি টালবাহানা শুরু করেন।

কলেজছাত্রী বলেন, সম্পর্ক হওয়ার পর বিয়ের আশ্বাসে রনির সঙ্গে স্বামী-স্ত্রীর মতো মেলামেশা করেছি। বিভিন্ন জায়গায় বেড়াতে গিয়ে রাত্রিযাপন করেছি। সব হারিয়ে আমি এখন নিঃস্ব।

তিনি বলেন, রনিকে বিয়ের কথা বললে সে বলতো পড়াশুনা শেষ করি দু’জনে। চাকরি করার পর তোমাকে বউ করে বাড়িতে নেব। কিন্তু এখন সে বিয়ে করতে রাজি হয় না। নানা টালবাহানা শুরু করেছে।

রনির পরিবারের সদস্যরা ওই তরুণীকে বুঝিয়েও বাড়ি ফেরাতে পারেনি। তিনি বলেন, রনিকে বিয়ে না করে বাড়ি ফিরব না। আমার যা সর্বনাশ হওয়ার তা হয়েছে।

এ ঘটনা দামুড়হুদা থানা পুলিশকে জানানো হলেও কোনো সুরাহা হয়নি।

দামুড়হুদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তদন্ত জাহাঙ্গীর বলেন, বিষয়টি শোনার পর ঘটনাস্থলে লোক পাঠিয়ে ছিলাম।